বিজেপির ভোট বাড়ার পর নতুন করে কৃষ্ণভক্তি জেগেছে তৃণমূলের: সিপিএম

শেখর দুবে, কলকাতা: জন্মাষ্টমী নিয়ে পশ্চিমবাংলার মানুষের সঙ্গে জনসংযোগ বাড়ানোর প্রস্তুতি নিয়েছে বিজেপি, তৃণমূল। আর জন্মাষ্টমীকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের এই অতিভক্তির মধ্যে ভোটব্যাঙ্ক রাজনীতি দেখছে সিপিএম।

আদর্শগতভাবে নিজেদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান থেকে বরাবর দূরে রেখেছে সিপিএম। কিন্তু উৎসব তো সবার, তাই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ না দিলেও উৎসব নিয়ে কোন ছুঁতমার্গ নেই সিপিএমেরও। এমনটাই জানাছেন রাজ্য সিপিএমের তরুণ মুখ শতরূপ ঘোষ।

অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলির মতো সিপিএমের তরফে কী রাজ্যবাসীকে শুভেচ্ছা জানানো হবে? এই প্রশ্নের উত্তরে শতরূপ বলেন, “দেখুন আমাদের দলের অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে জন্মাষ্টমী উৎসবের শুভেচ্ছা জানাবেন রাজ্যবাসীকে।”

- Advertisement -

পড়ুন: গোপন ডেরায় সন্তানের জন্ম দিলেন পঞ্চায়েতে বিজেপির দুই জয়ী প্রার্থী

পাশাপাশি সিপিএমের এই তরুণ নেতা বলেন, “দেখুন কৃষ্ণজন্মাষ্টমী পালন করার মধ্যে অন্যায় কিছু নেই। কিন্তু বিজেপি, তৃণমূল এরা ধর্মীয় উৎসব নিয়ে ভোটব্যাঙ্ক রাজনীতি শুরু করেছে। এতদিন কৃষ্ণকে নিয়ে কিছু করত না তৃণমূল, বিজেপির ভোট বাড়ার পর নতুন করে কৃষ্ণভক্ত হয়ে উঠেছে ওরা।”

সিপিএমের এই অভিযোগকে একেবারেই গায়ে মাখতে রাজি নয় তৃণমূল। টিএমসিপির রাজ্য সম্পাদক সায়নদেব ভট্টাচার্যকে এ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “দেখুন যে পার্টি অস্তিত্ব সংকটে ভুগছে তাদের কথা আমরা গায়ে মাখি না। আমাদের নেত্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোেপাধ্যায় রাজ্যের সার্বিক উন্নয়নের জন্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্য থেকে উৎসব অনুষ্ঠান সব বিষয়ে সমান নজর দেন। তৃণমূল দূর্গাপুজো, রামনবমী, জন্মাষ্টমী সহ সব ধরনের উৎসবে সামিল হয়ে মানুষকে শুভেচ্ছা জানায়। তবে রাজনীতির সঙ্গে ধর্ম কখনো মেশানো উচিৎ নয়। তৃণমূল রাজনীতির সঙ্গে ধর্ম মেশায়ও না।”

Advertisement ---
-----