নিজনি নভগোরড: রাশিয়ার রণক্ষেত্রে বল পায়ে সবুজ ঘাসে ফুল ফোটাচ্ছেন হ্যারি কেনরা৷ থ্রি-লায়ান্সদেরই এখন বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট ধরা হচ্ছে৷ শুধু মাঠ নয়, গ্যালারিতেও ঝড় ব্রিটিশদের৷ সেই ঝড় অবশ্য ব্রিটিশ সিংহবাহিনীর৷

চমকাবেন না, মাঠে ঝড় তুলেছে ইংল্যান্ডের থ্রি-লায়ন্স৷ আর মাঠের বাইরে গ্যালারিতে ঝড় তুলছে ব্রিটিশ ফুটবলারদের বান্ধবীরা৷

Advertisement

রবিবারের গ্যালারিতে বসে পানামা ম্যাচ দেখলেন জেমি ভার্ডির স্ত্রী রেবেকা৷ গায়ে ইংল্যান্ডের জার্সি আর ব্লু-রঙা ডেনিম টি-শার্টে গ্যালারি মাতালেন রেবেকা৷ হ্যারি কেনরা গোল পেতেই উল্লাসে সিট থেকে জাম্প দিয়ে গোল সেলিব্রেট করেন রেবেকা৷ পানামা ম্যাচে প্রথম একাদশে না থাকলেও পরিবর্ত ফুটবলার হিসেবে মাঠে নেমেছিলেন জেমি ভার্ডি৷

ম্যাচের অন্যতম সেরা দৃশ্য হয়ে রইল জেমির সঙ্গে রেবেকার চুম্বন দৃশ্য৷ জয়ের পর গ্যালারির দিকে ছুটে এসে বান্ধবীকে চুম্বন করেন ভার্ডি৷ ছেলে ট্রেলরকে গ্যালারি থেকে নামিয়ে উইনিং হাগ করেন জেমি৷ ভার্ডির পাশাপাশি গোলকিপার জর্ডন পিকফোর্ডও ম্যাচের পর বান্ধবীকে চুমু খেয়ে জয় সেলিব্রেট করলেন৷

ডিফেন্ডার জন স্টোনসকে দেখা গেল ম্যাচ শেষে বান্ধবীর সঙ্গে ছবি তুলতে৷ পানামা ম্যাচে দুটি গোল করেছেন স্টোনস৷

শুধু জেমি ভার্ডিরই বউই নয়, অন্য ইংল্যান্ড ফুটবলারদের বউরাও পনামার বিরুদ্ধে ৬-১ জয় দেখলেন৷ ইংল্যান্ডকে সার্পোট করতে রাশিয়ার মাটিতে ছুটে গিয়েছেন তারা৷ তাঁরাই এখন ইংল্যান্ডের দ্বাদশ ব্যক্তি হিসেবে প্রতি ম্যাচে গ্যালারিতে বসে গলা ফাটাচ্ছেন৷

----
--