স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: আটদিন নিখোঁজ থাকার পর এক যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার হল জাতীয় সড়কের ধার থেকে৷ হাওড়ার বালির ঘটনা৷ নিখোঁজ হওয়ার আট দিন পর বালির নিশ্চিন্দায় জাতীয় সড়কের ধার থেকে বিজয় সিং ওরফে ভিকির পচাগলা দেহ উদ্ধার হয়। বাড়ির লোক মৃতের জামা ও জুতো দেখে দেহটি শনাক্ত করেন৷

পরিবারের অভিযোগ, বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন করা হয়েছে ভিকিকে৷ পাশাপাশি পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের দুই বন্ধু ঘটনার দিন তাঁকে মদের আসরে ডেকে নিয়ে গিয়েছিল৷ তবে মৃতদেহ উদ্ধারের পর থেকেই এলাকা ছাড়া ওই দুই যুবক৷ এমনকী মোবাইলেও যোগাযোগ করা যাচ্ছে না তাদের সঙ্গে৷

Advertisement

আরও পড়ুন: রান তাড়া করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে টিম ইন্ডিয়া

রবিবার সকালে নিশ্চিন্দা থানা এলাকায় জাতীয় সড়কের ধারে ভিকির দেহ পাওয়া যায়। এদিনই বাড়ির লোকজন তাঁর দেহ শনাক্ত করে। পরিবারের লোকেরা থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করছে। এর আগে মালিপাঁচঘড়া থানায় অপহরণের মামলা করা হয়েছিল৷

জানা গিয়েছে, ভিকি তাঁর দুই বন্ধু রাজেন তিওয়ারি ও সোনুর সঙ্গে গত ২৪ আগস্ট বের হয়৷ এরপর থেকে তাঁর আর কোনও খোঁজ মেলেনি৷ মৃতের দাদা মুকেশ সিং বলেন, ‘‘আমার ভাই গত ২৪ আগস্ট শুক্রবার রাত আটটার সময় রাজেন তিওয়ারি আর সোনুর সঙ্গে বাড়ি থেকে বের হয়৷ এরপর ওরা গোলাবাড়ির কাছে গঙ্গার ধারে একটা জায়গায় যায়৷ সেখানে বসে মদ্যপান করে৷ সেদিন রাতে আমার ভাই এতটাই মদ্যপান করেছিল যে স্থানীয়রা রাজেনকে বলেছিল তাকে বাড়ি পৌঁছে দিয়ে আসার জন্য৷’’

মুকেশের কথায়, ‘‘পরে জানতে পারি ওকে বাড়িতে না ছেড়ে অন্য জায়গায় ছেড়ে দেওয়া হয়৷ পরদিন মা বলে ভাই এখনও বাড়ি ফেরেনি৷ গত ২৬ তারিখ থানায় মিসিং ডায়েরি করি। এরপর অপহরণের মামলা করা হয়। এখন দুই বন্ধুর সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না।’’

আরও পড়ুন: ম্যাজিক! অঙ্ক পরীক্ষায় আট এর জায়গায় পঞ্চাশে ৮০ পেল ছাত্র

তবে মুকেশের অভিযোগ, প্রথমে যোগাযোগ করা গেলেও ওই দুই যুবক ভিকির পরিবারকে কোনওরকম সহযোগিতা করেনি৷ এরপরই তাঁরা পুলিশের দ্বারস্থ হন৷ মৃতের দাদা বলেন, ‘‘আমাদের সন্দেহ সোনু ও রাজেনই এই ঘটনায় যুক্ত। আমার ভাইকে খুন করা হয়েছে।’’ যদিও পুলিশ সূত্রে খবর, এই ঘটনায় আগেই একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল৷ তবে মূল অভিযুক্তরা এখনও ফেরার। ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ৷

https://youtu.be/hz2wXw1ikFw

----
--