স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের আদর্শকে সর্বক্ষণ মেনে চলেন তিনি। রাজনীতিতে প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পর ‘দিদি অন্ত প্রাণ’ একমাত্র তিনিই। আর দিদিও তাঁর ভালোবাসা উজাড় করে দেন এই ছোট ভাইটিকে। তিনি রাজ্যের মন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম শীর্ষ নেতা ফিরহাদ হাকিম। বর্তমানে দিদির কল্যানে তিনি কলকাতা পুরসভার মেয়র। মন্ত্রী তথা মেয়রের মধ্যে এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছায়া দেখলো কলকাতা।

লক্ষ করার মতো বিষয় হলো, এদিন ধর্মতলার লাল বাড়ি থেকে ফ্রি-স্কুল স্ট্রিটের ফায়ার স্টেশন পর্যন্ত পায়ে হেঁটে আসেন মেয়র। তাঁর কথায়, ‘‘এই তো ১০ মিনিটের রাস্তা এটুকু পায়ে হেঁটেই চলে যাই। এখানে গাড়ি করে যেতে গেলে খামোখা যানজট লেগে যাবে। তাই তিনি এতটা রাস্তা পায়ে হেঁটেই আসেন।

Advertisement

এমনিতে সমস্ত রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতা মন্ত্রীদেরই হাটতে দেখা যায় বিভিন্ন মিছিলে। সেই দু – একটি উদাহরণ বাদ দিলে কোনো সরকারি কাজে কোনো মন্ত্রীদের পায়ে হেটে দফতরে যেতে দেখা যায়নি। সেক্ষেত্রে ফিরহাদ হাকিম এদিন দৃষ্টান্ত গড়লো বলেই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ।

শুরুটা হয়েছিল ২০১১ সালে। যখন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়ে প্রথমে তিনি মহাকরণে যান। আর এদিনও দেখা গেল ফিরহাদ হাকিমকে। হাঁটলেন তো হাঁটলেন, তবে হাটাতেও সেই দিদির ছায়া। দিদির যেমন দ্রুত গতিতে হেটে নিরাপত্তারক্ষীদের হার মানান, এদিন তেমন মন্ত্রী ফিরহাদ ১০ মিনিট হেঁটে রক্ষীদের বুঝিয়ে দিলেন তাঁদের থেকে এখন একটু হলেও তাঁর পায়ের জোর বেশি। সিকিউরিটির তো রীতিমত হাঁপিয়ে উঠেছিলেন এদিন তাঁর সঙ্গে হেটে।

----
--