রাজ্য কারা দফতরের উদ্যোগে জেলগুলিতে স্যানেটারি ন্যাপকিন ভেন্ডার

মুম্বই: উদ্যোগটি প্রশংসনীয়৷ মহারাষ্ট্রে জেলগুলিতে স্যানেটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডিং মেশিন বসানোর উদ্যোগ নিচ্ছে রাজ্য কারাগার দফতর৷ ইতিমধ্যেই ৯টি সংশোধনাগারে বসানো হচ্ছে স্যানেটারি ন্যাপকিন মেশিন৷

এখনও পর্যন্ত ইয়েরাওয়াড়া, থানে, কোলাপুর, ঔরাঙ্গাবাদ, নাগপুর, অমরাবতী, কল্যাণ, বাইকুল্লা ও চন্দ্রপুর সংশোধানাগারে ভেন্ডিং মেশিন বসানো হবে৷ প্রায় ১,০২৩ মহিলা বন্দি ভেন্ডিং মেশিনের সুবিধা পাবেন৷ মহারাষ্ট্র মহিলা কমিশন থেকে প্রথম স্যানেটারি ন্যাপকিন ভেন্ডিং প্রস্তাবটি রাখা হয়৷ রাজ্য কারাগার দফতর এই পাইলট প্রোজেক্টে সম্মতি দেয়৷

ভেন্ডিং মেশিনটিতে ব্যবহৃত ন্যাপকিনও ফেলা যাবে৷ পরিবেশ দুষণ রুখতেই এই উদ্যোগ৷ মেশিনে ফেলার পড়ই ন্যাপকিনটি পুড়ে যাবে বলে জানাচ্ছে রাজ্য মহিলা কমিশন৷ এতদিন, প্রত্যেক মহিলা বন্দির জন্য ৮টি করে ন্যাপকিন বরাদ্দ ছিল৷ ৮-র বেশি প্রয়োজন হলে জেল কর্তৃপক্ষ থেকে নূন্যতম মূল্যে ন্যাপকিন কিনতেন বন্দিরা৷ নতুন ব্যবস্থায় টোকেন দিয়ে ভেন্ডার মেশিন থেকে ন্যাপকিন নিতে পারবেন বন্দিরা৷ ১ টাকার কয়েন দিলেই ন্যাপকিন মিলবে৷

- Advertisement -

রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন বিজয়া রোহতকার জানাচ্ছেন, জেল কর্তৃপক্ষ ভেন্ডিং মেশিনের তত্ত্বাবধানে থাকবে, বন্দিদের মেশিন ব্যবহারে প্রশিক্ষণ দেওয়ার দায়িত্ব তাদেরই৷ প্রত্যেকটি ভেন্ডিং মেশিনে ৬০টি ন্যাপকিন রাখা হবে৷ অবশ্য, বিভিন্ন সংশোধনাগারে বন্দিদের সংখ্যা অনুসারে ন্যাপকিন রাখা হবে৷

রাজ্যের সংশোধনাগার গুলির পরিচ্ছন্নতা নিয়ে বার বার মাহারাষ্ট্রের কারাগার দফতরকে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে৷ গতবছরই অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের জন্য দুই জন মহিলা বন্দির মৃত্যু হয়৷ ঘটনার পর থেকেই সংশোধনাগারগুলির পরিচ্ছন্নতার উপর বিশেষ নজর দেওয়া হচ্ছে৷ যার সূত্রপাত স্যানেটারি ন্যাপকিন ভেন্ডিং মেশিন৷

Advertisement ---
---
-----