সাহিত্যে নোবেল পেলেন কাজুও ইশিগুরো

স্টকহোম: এবছর সাহিত্যে নোবেল পেলেন বুকার জয়ী কাজুও ইশিগুড়ো৷ ব্রিটিশ লেখক কাজুও আদপে জাপান বংশোদ্ভুত৷ সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য নোবেল পান তিনি৷ উপন্যাস ছাড়াও তিনি স্ক্রিপ্ট, ছোট গল্প লেখেন৷ এর আগে বুকার পুরস্কারের জন্য চার বার তার নাম মনোনীত হয়৷ ১৯৮৯ সালে বুকার পুরস্কার পান তিনি৷

১৯৫৪ সালের ৮ই নভেম্বর জাপানের নাগাসাকিতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি৷ মাত্র পাঁচ বছর বয়সে সপরিবারে ব্রিটেন চলে আসেন৷ সেখানেই তার বেড়ে ওঠা৷ স্কুলের পড়া শেষ করার পর তিনি জার্নালে লিখতেন৷ ১৯৭০ সালে কেন্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইশিগুড়ো ইংরেজি সাহিত্য ও দর্শনে স্নাতক হন৷ পরবর্তীকালে ক্রিয়েটিভ রাইটিং নিয়ে পড়াশুনা করেন৷

প্রথম উপন্যাসেই নিজের জাত চিনিয়ে দেন ইশিগুড়ো৷ ১৯৮২ সালে প্রকাশিত হয় প্রথম উপন্যাস ‘এ পেল ভিউ অফ হিলস’৷ ১৯৮৬ সালে প্রকাশিত হয় ‘এন আর্টিস্ট অফ দ্য ফ্লোটিং ওয়াল্ড’৷ ১৯৮৯ সালে প্রকাশিত হয় আরেক উপন্যাস- ‘দ্য রিমেন্স অফ দ্য ডে’৷ এই উপন্যাসের জন্য বুকার পুরস্কার পান তিনি৷ পরবর্তীকালে এই উপন্যাসের গল্প অবলম্বনে সিনেমা বানানো হয়৷ এখনও পর্যন্ত তিনি ৮টি উপন্যাস লিখেছেন৷ সর্বশেষ লেখাটি বের হয় ২০১৫ সালে৷ ‘দ্য বারিড জায়ান্ট’ উপন্যাসে তিনি খুব সুন্দর ভাবে স্মৃতির সঙ্গে বিস্মৃতি, অতীতের সঙ্গে বর্তমান এবং কল্পনার সঙ্গে বাস্তবের মেলবন্ধন ঘটান৷ উপন্যাস ছাড়াও তিনি টেলিভিশন ও সিনেমার স্ক্রিপ্টও লিখেছেন৷ ২০০৮ সালে দ্য টাইমস তাদের ৩২ তম তালিকায় ব্রিটেনের ৫০ জন সেরা লেখক হিসাবে তার নাম অর্ন্তভুক্ত করে৷

Advertisement ---
---
-----