ছেলের সঙ্গে জমিবিবাদে আত্মঘাতী বাবা

স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: দীর্ঘদিন থেকে বাড়ির বড় ছেলের সঙ্গে বাবার জমি নিয়ে বিবাদ চলছিল৷ তবে সেই মানসিক চাপ আর নিতে না পেরে কীটনাশক খেয়ে আত্মঘাতী হলেন বাবা৷ মৃত বৃদ্ধের নাম হরিপদ মণ্ডল (৭৮)৷ জলপাইগুড়ি জেলার ময়নাগুড়ি ব্লকের দক্ষিণ খাগড়াবাড়ির ঘটনা।

মৃত বৃদ্ধের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, পৈতৃক একটি আধ বিঘা জমি নিয়ে বাবা হরিপদ মণ্ডলের সঙ্গে বিবাদ ছিল বড় ছেলে সুকুমার মণ্ডলের।

আরও পড়ুন: পাচার হয়ে আসা ১৬ জন যুবতী উদ্ধার

- Advertisement -

অভিযোগ, বাড়ির ছোট ছেলের নামে থাকা জমিটি তার নামে লিখে দেওয়ার জন্য বাবাকে প্রতিনিয়ত চাপ দিতে থাকত সুকুমার। এই নিয়ে বৃদ্ধ মা এবং বাবার উপর প্রায়ই সে অত্যাচার চালাত বলেও দাবি করেছে স্থানীয়রা। কিন্তু গত শনিবার সুকুমার এই একই দাবি নিয়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে উত্তেজিত হয়ে ওঠে৷ তবে বাবা-মা তাঁদের সিদ্ধান্তে অনড় থাকে৷ তখনই তার মাকে বেধড়ক মারধর করে সুকুমার৷

আরও পড়ুন: রাজনৈতিক সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে আতঙ্ক ছড়াল ফরাক্কায়

এই ঘটনায় হরিপদবাবু বাঁধা দিতে গেলে তাঁকেও মারধর করে হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এরপরই সোমবার কীটনাশক খান হরিপদবাবু৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের সহায়তায় তড়িঘড়ি তাঁকে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভরতি করা হয়৷ কিন্তু তাতেও শেষরক্ষা হয়না৷ মঙ্গলবার দিন সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। এদিকে ঘটনাস্থলে ময়নাগুড়ি থানার পুলিশ এলে কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

আরও পড়ুন: ভয়াবহ গাড়ি দুর্ঘটনায় বরাতজোরে বাঁচলেন চালক

প্রসঙ্গত, ওইদিন সালিশি সভা বসিয়ে বিষয়টি মিটমাট করার চেষ্টা করা হয়। সালিশিতে কয়েকজন স্থানীয় শাসকদলের নেতাও ছিলেন। কিন্তু তাতেও সমস্যা মেটেনি বলে জানা গিয়েছে। এদিকে ঘটনার পর থেকেই পলাতক হরিপদবাবুর বড় ছেলে সুকুমার। তবে থানায় এখনও কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি বলে পুলিশ তদন্তে নামতে পারেনি। স্থানীয়দের অনুমান, হরিপদবাবুর স্ত্রী বড় ছেলের ভয়েই থানায় কোনও অভিযোগ দায়ের করতে চায়নি৷

আরও পড়ুন: চলতি মাসেই তৃণমূলের নতুন সভাপতির নাম ঘোষণা?

Advertisement
----
-----