আমিরের তৎপরতায় নতুন জীবন লাভ ‘দঙ্গল’ টেকনিশিয়ানের

মুম্বই : সিনেপর্দায় হিরোদের অবদান অবিস্মরণীয়৷ এমন কোনও কাজ নেই যা একজন হিরো পারেন না৷ শ’খানেক গুণ্ডার সঙ্গে একা লড়াই করা হোক বা নায়িকাকে বাঁচাতে মৃত্যুর কোলে ঝাঁপ দেওয়া, সবটাই সম্ভব৷ তবে সব অসম্ভব সম্ভব হয় সিনেমায়৷ বাস্তব জীবনে কী আর তেমন হয়? হয় বৈকি৷ মিঃ পারফেকশনিস্টের কথাই ধরুন৷

বলিউডের পারফেকশনিস্ট মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনলেন তাঁর ছবির টেকনিশিয়ানকে৷ জাতীয় চলচ্চিত্র সম্মানে সম্মানিত সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার শাজিত কোয়েরিকে প্রাণ বাঁচালেন আমির খান৷ ‘দঙ্গল’ ছবিতে আমিরের সঙ্গে কাজ করেছিলেন শাজিত৷ হার্ট অ্যাটাকের কারণে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷

পড়ুন: সোনালির ‘মৃত্যুসংবাদে’ প্রতিক্রিয়া দিলেন স্বামী গোল্ডি বেহল

- Advertisement -

কিন্তু হাসপাতালে পৌঁছলেও শাজিতের চিকিৎসা শুরু হয়নি৷ ঘন্টার পর ঘন্টা শাজিতকে হাসপাতালের বেডেই শুইয়ে রাখা হয়েছিল৷ একজনও ডাক্তার তার চিকিৎসার জন্য এগিয়ে আসেনি৷ চিকিৎসার কোনও চিহ্ন দেখতে না পেয়ে শাজিতের বাড়ির লোকজন আমির খানের সঙ্গে যোগাযোগ করে৷

ফোন পেতেই মাঝরাতে আমির স্বয়ং এসে হাজির হন বান্দ্রার সেই হাসপাতালে যেখানে শাজিতকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল৷ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দায়িত্বজ্ঞানহীনতা দেখে অবাক হয়ে গিয়েছিলেন আমির৷ নিমেষের মধ্যে ৪৪ বছরের শাজিতকে কোকিলাবেন ধীরুভাই আম্বানি হাসপাতালে নিয়ে যান৷

সূত্রের খবর, অনিল আম্বানির সঙ্গে কথা বলে এমারজেন্সিতে ভরতি করান শাজিতকে৷ ৬ সেপ্টেম্বর রাতে হার্ট অ্যাটাক হয় শাজিতের৷ আমির তৎপরতায় শাজিতের চিকিৎসা শুরু হয়৷ ৭ অক্টোবর মাঝরাত থেকেই খানিকটা সুস্থ হয়ে উঠেছেন এই টেকনিশিয়ান৷

Advertisement ---
-----