সৌমেন শীল, কলকাতা: এই ‘কন্যাশ্রীকে’ দেখলে হয়তো আঁতকে উঠতেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার সিঙ্গুর-কিষাণ পদযাত্রার অন্যতম মুখ হয়ে উঠলেন বেলদার বছর কুড়ি-একুশের রিয়া মাইতি। শহরের রাজপথে হাঁটতে হাঁটতে রিয়ার মুখের স্লোগান আগুন সঞ্চার করলো পথচলতি বামপন্থীদের।

সন্ধ্যের পরও কমরেড রিয়ার স্লোগান গুলি যেন কানে বাজছে হাজার কৃষক- শ্রমিকের।

Advertisement

“সিঙ্গুর থেকে শালবনী, ক্ষেত মজুরের কান্না শুনি, এই তৃণমূল আর না আর না ….।” “আরে এই বিজেপির অনেক গুণ, ধর্মের নামে মানুষ খুন, এই বিজেপি আর না আর না …।

ঝাঁঝালো গলা নয় রিয়ার। তবে তাঁর গলার উচ্চগ্রামে শাসক বিরোধী স্লোগান শুনে শুনে গলা মেলাচ্ছিলেন সঙ্গীরা ( ভিডিওটি দেখুন)।

তারস্বরে স্লোগান দিচ্ছিলেন রিয়া , “চোর গুন্ডা দেশ চালায়, পুলিশ লুকায় টেবিলের তলায় … এই তৃণমূল আর না আর না ….তোলা বাজি চালিয়ে যাও, ছাত্র আন্দোলনে গুলি চালাও, এই তৃণমূল আর না …।”

রিয়ার মুখের স্লোগান গুলিই সারা সন্ধ্যায় ফেসবুক, হোয়াটস আপে ছড়িয়েছে। দোকানদার থেকে সরকারি কর্মী, সকলেই চোখ কপালে তুলে তাকিয়েছে। মমতার জমানায় সাহস দেখাচ্ছে একটা এইটুকু মেয়ে?

রাতে Kolkata24x7 এর সঙ্গে কথা বললেন রিয়া। স্লোগান গুলো লিখলো কে? আপনি? ” না না হলদিয়ার এক কমরেড, ” অকপট রিয়া। মিথ্যা কথা বলে তারিফ হজম করার মেয়ে যে সে নয়, এক কথাতেই স্পষ্ট করেছে রিয়া।

২০১৭ সাল থেকে রাজনীতি করছে বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী রিয়া, কিন্তু সে বামপন্থী পরিবারের মেয়েই নয়, এই প্রশ্নকর্তাকে অবাক করে জবাব দিলেন রিয়া। ডিওয়াইএফএই এর বেলদা আঞ্চলিক কমিটির সদস্যা রাজনীতিকেই ভবিষ্যৎ বানাতে চায়। তবে রাজনীতিতে নিজেকে কোথায় দেখতে চায় তা একটু ভেবেই জবাব দেবে , জানালো রিয়া।

তবে রিয়ার স্লোগান গুলি শুনলে শাসক বা বিজেপি অস্বস্তি বাড়বে।

স্লোগানে, আর কি বলেছেন রিয়া? “শিক্ষা মন্ত্রী টুকে পাস শিল্প মন্ত্রী টাইম পাশ, এই তৃণমূল আর না। আরে, অর্থ মন্ত্রী দিচ্ছে বাঁশ, কৃষি মন্ত্রী কারাবাস, এই তৃণমূল আর না আর না …।” শীঘ্রই বামপন্থীদের ছাত্রছাত্রীদের মুখে এই স্লোগানগুলি দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়তে চলেছে।

----
--