ক্যাম্পাসকেই হোস্টেল বানিয়ে অভিনব আন্দোলন প্রেসিডেন্সির ছাত্রদের

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মেডিক্যালের পর এবার প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে হোস্টেলের জন্য আন্দোলন করছে ছাত্ররা। ছাত্রদের দাবি ২০১৫ সালে মেরামত করার কথা বলে ছাত্রদের সরানো হয় হিন্দু হোস্টেল থেকে। এরপর বারবার প্রতিশ্রুতি দিলেও আবাসিকদের হোস্টেল ফিরিয়ে দেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। প্রায় একমাস ধরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসেই আন্দোলন করছেন ছাত্রছাত্রীরা।

আন্দোলনকারী এক ছাত্র এবং এসএফআইয়ের রাজ্য কমিটির সদস্য শুভজিৎ সরকার কলকাতা২৪x৭-কে বলেন, “২০১৫ সালে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আমাদের বলে ১১ মাস সময় দাও হোস্টেল মেরামত করার জন্য। এরপর হিন্দু হোস্টেলের আবাসিক ছাত্রদের রাজারহাটে একটি সরকারি বাড়িতে থাকার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। ওখান থেকে প্রেসিডেন্সির দূরত্বও অনেকটা, প্রায় ২-৩ ঘণ্টার জার্নি করে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে হয়। ওখানে থাকারও পরিবেশ নেই। খাওয়ার প্রচুর অসুবিধা।”

কতদিন ধরে রাজারহাটে রয়েছেন প্রেসিডেন্সির আবাসিক হোস্টেলের ছাত্ররা? এই প্রশ্নের উত্তরে শুভজিৎ বলেন, “দেখুন ১১ মাস বলা হলেও ৩৬ মাস কেটে গিয়েও হোস্টেল ফেরৎ আসেনি। এরপর হোস্টেলের আবাসিক এবং আমরা সবাই আন্দোলনে নামি। তখন কর্তৃপক্ষ বলে ৬ মাস দাও আমরা ব্যবস্থা করে দিচ্ছি। আগস্টে সেই ৬ মাসও শেষ হয়ে যায়। এরপর বাধ্য হয়েই আমরা অাগস্টের ৩ তারিখ থেকে আবার আন্দোলন শুরু করেছি।”

- Advertisement DFP -

প্রেসিডেন্সির হিন্দু হোস্টেলের আবাসিক ছাত্ররা রাজারহাট থেকে চলে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজেদের হোস্টেলের বাইরে বারান্দায় থাকছেন বেশ কিছুদিন ধরে। কার্যত প্রেসিডেন্সি ক্যাম্পাসকেই হোস্টেল বানিয়ে ফেলেছেন আন্দোলনকারী ছাত্ররা। তবুও ভ্রুক্ষেপ নেই কলেজ কর্তৃপক্ষের। আন্দোলনকারী ছাত্রদের অভিযোগ এই বৃষ্টিতে বারান্দাতে থাকার ফলে ম্যালেরিয়াতে আক্রান্ত হয়ে বাড়ি ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছেন অনেকে। তবে হোস্টেল হাতে না আসা পর্যন্ত এভাবেই আন্দোলন চলবে বলে জানালেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনকারী ছাত্রছাত্রীরা।

Advertisement
----
-----