স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ওভারলোডিং এর নামে রাস্তায় ট্রাক আটকে হেনস্থা নয়, লোডিং পয়েন্ট থেকেই এসব বন্ধ করতে হবে৷ এমনই দাবিতে আন্দোলনে নামছে ফেডারেশন অফ ওয়েস্ট বেঙ্গল ট্রাক অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন৷

মাঝেরহাটের ব্রিজ ভেঙে পড়ার পর ২০ চাকার ট্রাক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এর পরই প্রশাসন ওভারলোডিং বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছে৷ আর এর ফলেই দেখা দিয়েছে নতুন সমস্যা৷ অভিযোগ, পুলিশ অতি সক্রিয় হয়ে ওভারলোডিং এর নামে ট্রাক দাঁড় করিয়ে চালক ও হেল্পারদের হেনস্থা করছে৷

Advertisement

ট্রাক অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশনের জয়েন্ট সেক্রেটারি প্রবীর চট্টোপাধ্যায় জানালেন, আমরাও চাই এই রাজ্যে ওভারলোডিং বন্ধ হউক৷ তবে তা লোডিং পয়েন্ট থেকেই সেটা বন্ধ করতে হবে পুলিশকে৷

জানা গিয়েছে, ট্রাক সংগঠন বৃহস্পতিবার সকালে বালি নিবেদিতা ব্রিজে ওঠার মুখের চৌমাথায় অবস্থান বিক্ষোভ-সমাবেশ করবে৷ আন্দোলনে থাকবে সংগঠনের প্রতিনিধি ও নেতা-নেত্রীরা৷ এছাড়া থাকবে বালি-পাথর বহনকারী ট্রাকমালিকরা৷ মানুষের জীবন, রাস্তাঘাট, ব্রিজ বাঁচাতে অবিলম্বে ওভারলোডিং বন্ধের দাবিতে এই আন্দোলন বলে জানালো সংগঠন৷ আর ওভার লোডিং বন্ধ হলে বাঁচবে পশ্চিমবঙ্গের পরিবহন শিল্প৷ ১০ বা ১২ চাকার ট্রাক নয় সব ট্রাকের R.L.W অনুযায়ী লোড করলে কোনও রাস্তা ও ব্রিজের খতি হবে না৷ লোডিং পয়েন্ট থেকে এই সব ট্রাক বন্ধ করলে তবেই ওভার লোডিং বন্ধ হবে৷

এর আগেও দেশ জুড়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য ট্রাক ধর্মঘট হয়েছিল৷ ওভার লোডিং বন্ধসহ পেট্রোল ও ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি, বিমার প্রিমিয়াম বৃদ্ধি, পুলিশের জুলুমবাজি, জিএসটি লাগু সহ এক গুচ্ছ দাবিতে এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছিল৷ তবে সব অভিযোগ পুলিশ অস্বীকার করেছে৷

----
--