দেবনাথ মাইতি, মেদিনীপুর: প্রায় ১২ ঘন্টা আন্দোলনের পর বিএড পরীক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিল বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শেষপর্যন্ত ৬ জুলাইয়ের পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে৷

মেদিনীপুর জেলায় বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ৫৫টি বিএড কলেজ রয়েছে৷ চতুর্থ সেমিষ্টারের পরীক্ষা চলছিলো। রবিবার হঠাৎ পরীক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইডে দেখতে পান, গত ২৬শে জুনের প্রথমার্ধ ও ২৮শে জুনের দ্বিতীয়ার্ধের পরীক্ষা বাতিল করে দেওয়া হয়েছে৷ এবং সেইসঙ্গে ওই দুটি পরীক্ষার তারিখ ঘোষনা করেছে ৬ই জুন। এতেই ক্ষেপে যান পরীক্ষার্থীরা৷

Advertisement

আরও পড়ুন- নিজে মাঠে নেমেও কলেজে তোলাবাজি ঠেকাতে ব্যর্থ মমতা

অভি কোলে নামে এক পরীক্ষার্থী বলেন, আমরা জানতে পেরেছি ওই দুটি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস হয়ে হয়ে যাওয়ার গুজব রটেছিল৷ যদি তাই হয় তাহলে সেই কারনটা কর্তৃপক্ষ কেন উল্লেখ করলো না?

পূর্ব মেদিনীপুরের চৈতন্যপুর থেকে আসা লিপি মাইতি বলেন,প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে যাওয়া কতৃপক্ষের গাফিলতি তার মাসুল আমরা কেন দেব? আমরা তো পরীক্ষা দিয়েছি, সেই পরীক্ষা৷ আবার কেনো দেবো ? এরপরই সোমবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১নম্বর গেটে জমায়েত হন তাঁরা৷

আরও পড়ুন- ভরতি নিয়ে ‘তোলাবাজি’ রুখতে মুখ্যমন্ত্রীর পর কলেজ পরিদর্শন শিক্ষামন্ত্রীর

অবস্থান শুরুর ঘন্টা দুয়েক পর পরীক্ষা নিয়ামক সুব্রতকুমার দে ও রেজিস্টার জয়ন্ত কিশোর নন্দী তাদেরকে ডেকে পাঠিয়ে সাফ জানিয়ে দেন, পরীক্ষা আবার দিতে হবে। কিন্তু ছাত্রছাত্রীরা সিদ্ধান্ত নেন পরীক্ষা বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আমরণ অনশন করবেন তাঁরা। সেইমতো আন্দোলন চলে৷ শেষে রাত ১১ টা নাগাদ পরীক্ষা নিয়ামক সুব্রত কুমার দে ঘোষনা করেন, ৬ ই জুলাই এর পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। এই ঘোষণায় স্বাভাবিকভাবেই খুশি অনশনকারীরা৷

----
--