বাড়ছে জলস্তর, মালদায় ফুঁসছে গঙ্গা

স্টাফ রিপোর্টার, মালদা: আশঙ্কা বাড়ছে৷ সঙ্গে বাড়ছে আতঙ্কও৷ কারণ বন্যার ভয়াবহ ছবির সঙ্গে এই জেলার কম বেশি সবাই পরিচিত৷ তাই বুধবার গঙ্গার চেহারা দেখে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে এলাকাবাসীর মধ্যে৷ মালদা এখন নিদ্রাহীন রাত জাগছে আচমকা বন্যার আশঙ্কায়৷ হিসেব বলছে ১২ ঘন্টায় গঙ্গার জল বেড়েছে প্রায় ১২ সেন্টিমিটার। বুধবার সকালে গঙ্গার জলস্তর হয়েছে ২৪-৮১ মিটার। এর ফলে নতুন করে জলবন্দী হয়েছে প্রায় ১ হাজার পরিবার৷

ইতিমধ্যেই মানিকচক, রতুয়া ১নং ব্লকের বেশ কিছু এলাকাতে জল ঢুকতে শুরু করেছে। মানিকচক ব্লকের জোতপাট্টা ডোমহাট, রামনগর গ্রামে প্রায় এক হাজার পরিবার এখনই জলবন্দি হয়ে পড়েছে৷ গঙ্গা নদীতে জারি রয়েছে লাল সর্তকতা। চরম বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে এই নদী৷ ভাঙনগ্রস্ত এলাকার মানুষদের অন্য জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ চলছে পাশাপাশি প্রশাসন সতর্ক রয়েছে জানালেন মালদা জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌর চন্দ্র মন্ডল।

পড়ুন:ওভারলোডিং বন্ধের দাবিতে আন্দোলনে নামছে ট্রাক সংগঠন

- Advertisement -

রতুয়া ১নং ব্লকের বিলাইমারি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। প্রতি মুহূর্তের নজরদারি চালাচ্ছে জেলা সেচ দফতর৷ ফুলহার নদীর অসংরক্ষিত এলাকায় জারি করা হয়েছে হলুদ সতর্কতা। ভাঙন প্রবন ও বন্যাতে প্লাবিত হতে পারে, এমন গ্রামগুলিতে মজুত করা হচ্ছে ত্রাণ সামগ্রী। ব্লক আধিকারিকদের পরিস্থিতি মনিটারিং করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবারও মালদা জেলায় অব্যাহত গঙ্গার ভাঙন। এদিন জেলার রতুয়া ১ নম্বর ব্লকের মহানন্দা টোলা এলাকার জয়ন জারইতলা, মহান টোলা, বিলাই মারি ও মহানন্দা এলাকায় ব্যাপক ভাঙন সৃষ্টি হয়। পাশাপাশি কালিয়াচক ৩ নম্বর ব্লকের পার দেনাপুর, অনুপ নগর, পার লালপুর ও শোভাপুর এলাকায় ব্যাপক ভাঙন সৃষ্টি হয়েছে।

Advertisement ---
---
-----