নোটবন্দি থেকে জিএসটি, মোদীর মাথা নত এই বাড়ির দুর্গার কাছে

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: মন্দার বাজারে পুজো করতে হিমশিম অবস্থা বহু বনেদী পরিবারের। নোটবন্দি, জিএসটি, পেট্রো পণ্যের বিপুল দাম বৃদ্ধি,একের পর এক ঝড়ে হিমশিম অবস্থা সাধারণ মানুষের। হাজারো সমস্যার মাঝেই দুর্গাকে ঘরে তুলেছে বেহালার সরকার পরিবার।

এই বছরে তিনে পড়বে সরকারদের দুর্গাপুজো। অর্থাৎ পুজো শুরু ২০১৬তে। বছর নোটবন্দির। যদিও নোটবন্দি হয়েছিল ওই বছর দুর্গা পুজোর পরে। কিন্তু নোট বন্দির দীর্ঘ মেয়াদী প্রভাব পড়েছিল ২০১৭র পুজোয়। আবার ওই বছরেই জুলাই মাসে জিএসটি লাগু করে কেন্দ্রীয় সরকার। বহু জিনিসের দাম বেড়ে যায়। কোন খাতে কত খরচ হতে পারে সেটা করতেই বিস্তর সমস্যায় পড়তে হয়েছে শোভাবাজার থেকে দাঁ বাড়ির মতো বিখ্যাত বনেদী বাড়ির পুজোগুলিকে। ঠিক সেই সময়েই পুজো শুরু অভিষেক সরকারদের।

- Advertisement -

অভিষেক আজকের প্রজন্মের ছেলে। কিন্তু ঠাকুর দেবতা নিয়ে থাকতে পছন্দ করে। পুজোর আচার ব্যবস্থা, মন্ত্র সমস্ত নখদর্পণে তাঁর। যৌথ পরিবারে প্রত্যেকের সমান উদ্যোগে পুজো শুরু হলেও অভিষেকের ভূমিকাই উল্লেখযোগ্য। অভিষেক বলেন, “২০১১ তেই দুর্গা পুজো শুরু করার ইচ্ছা ছিল। সম্ভব হয় ২০১৬তে। কিন্তু ২০১১তেই আমাদের অন্নপূর্ণা পুজো শুরু হয়েছিল।” একইসঙ্গে তিনি বলেন, “পুজো করতে প্রায় লাখ দুয়েক খরচ হয়েই যায়। কিন্তু পরিবারের সবাই একযোগে হয়েছি বলেই এই বাজারেও পুজো শুরু করতে পেরেছি। তাছাড়া একটা মানদ ছিল। ইচ্ছাপূরণ হতেই পুজো শুরু করতে আরও বেশি করে উদ্যোগ হই আমরা।”

২০১৬-তে ঘট পুজোর মাধ্যমেই শুরু হয়েছিল পুজো। তবে ২০১৭ থেকে সনাতন রুদ্র পালকে ঠাকুর তৈরির দায়িত্ব দেওয়া হয়। অভিষেক বলেন, “উনি আমাদের পরিবারের খুব কাছের মানুষ। তাই ওনাকে দায়িত্ব দিতে দ্বিতীয়বার ভাবিনি। ওনার হাতেই তৈরি হয় আমাদের অন্নপূর্ণা মূর্তি।” তবে ২০১৭-র সঙ্গে এই বছরের দেবীমূর্তির পার্থক্য রয়েছে। পরিবারের সদস্যরা জানালেন, “ঠাকুর গড়ার দায়িত্ব আমরা ওনার উপরেই ছেড়ে দিয়েছি। তবে আমাদের মা শান্তির প্রতীক তাই রুদ্র মূর্তি তৈরি হয় না।” আগামী দিনেও মূর্তি পরিবর্তন হতে পারে বলে জানাচ্ছেন অভিষেক।

তবে সরকার পরিবার আদতে ওপার বাংলার। সেই নিয়ম অনুযায়ী লক্ষ্মীর পাশে গনেশ থাকে না। থাকেন সরস্বতী। কার্তিকের পাশে থাকেন লক্ষ্মী। আমিষভোগ দেওয়া হয় ঠাকুরকে। কিন্তু বিজয়ার সময় দেওয়া হয় না কনেকাঞ্জলি।

Advertisement ---
-----