হায়দেরাবাদ: কথায় বলে রোগ কোনও জাতি ধর্ম মানেনা? হাসপাতালও তাই জাতি ধর্ম মানেনা৷ কিন্তু মসজিদ? প্রথমেই উত্তর হবে হ্যাঁ মানে৷ কিন্তু না৷ মানুষের উপকারে হায়দেরাবাদের একটি মসজিদকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে রূপান্তরিত করা হয়েছে৷ সেখানে চিকিৎসা করাতে আসেন প্রায় দেড় লক্ষ বিভিন্ন সম্প্রদায়ের বিভিন্ন ধর্মের মানুষ৷

মসজিদ-ইস’হক বস্তির গরিব মানুষকে দিচ্ছে চিকিৎসার সুব্যবস্থা৷ সেখানে ধর্মের কোনও বেড়াজাল নেই৷ সব ধর্মের মানুষ আসেন রোগের চিকিৎসা করাতে৷ হেল্প হ্যান্ড ফাউন্ডেশন নামের একটি বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এই ব্যবস্থা করেছে৷

Advertisement

আরও পড়ুন: ‘দর কষাকষিতে সেরা মোদীর ভারত’

এক সংবাদ সংস্থাকে HHF এর ট্রাস্টি মুজতাবা আসকারি জানান, স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রটি খোলার সময় আমরা খুবই ভেবেচিন্তে সেটি নির্বাচন করেছি৷ তারপর এই এলাকাটিকে আমরা পছন্দ করি৷ তারা গরিব মানুষের অন্তরে থাকতে চায়, তাই গরিব বস্তির মানুষ যাতে সবথেকে ভালো চিকিৎসা পায় সেই ব্যবস্থা করা হয়৷

তিনি বলেন, “এই মসজিদটির চারদিক ঘিরে রয়েছে নটি বস্তি৷ এই এলাকার জনসংখ্যা ১.৫ লক্ষের উপরে৷ এটা গড়ার পিছনে আসল কারণ হল আমরা তাদের চিকিৎসা করতে চেয়েছিলাম যারা সরকারি স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে অবগত নয়৷”

আরও পড়ুন: বিএসএফকে টার্গেট করে ভয়াবহ মাও হামলা, আহত ৬ জওয়ান

তিনি আরও বলেন, এই প্রচেষ্টায় বেশ সাড়া মিলেছে৷ প্রতিদিন প্রায় ৪০ থেকে ৫০ জন মানুষ এখানে চিকিৎসার সুবিধা নিতে আসেন৷ এখানে যাতায়াতের ব্যবস্থাও দরিদ্র মানুষদের জন্য৷ যাঁদের একেবারেই কোনকিছু করার উপায় নেই এবং প্রয়োজন রয়েছে৷

এনজিওটির ম্যানেজার ফারিদ জানিয়েছেন, “১৩ বছর ধরে এই হেল্থ সেন্টারে কাজ করছি৷ আমরা ৩০টি হাসপাতাল ছড়িয়ে দিয়েছি এবং আমাদের ভল্যান্টারি সাপোর্ট স্টাফেরা কাজ করছেন ওখানে৷ আমরা রোগীদের নিয়ে স্টাডি করি৷ তাদের শরীরের জন্য কী কী প্রয়োজন আছে, এরপর তাদের আমরা হাসপাতালে পাঠিয়ে দিই৷ আমরা ওদের যাতায়াতের ব্যবস্থা করে দিই ও তাদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিই৷ “

আরও পড়ুন: চিন্তা বাড়িয়ে রাজ্যে প্রবল বেগে আছড়ে পড়তে চলেছে ঘূর্ণিঝড় ‘Gaja’

----
--