ডেঙ্গি পরিস্থিতি এ বছর আরও ভয়ঙ্কর হতে চলেছে

বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: গত বছর কার্যত মহামারীর রূপ নিয়েছিল ডেঙ্গি৷ এ বছর ডেঙ্গির পরিস্থিতি আরও সঙ্গিন হতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গে৷ খোদ রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরই বলছে এমন কথা৷

তবে, শুধুমাত্র রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরই নয়৷ সরকারি এবং বেসরকারি চিকিৎকদের বিভিন্ন অংশের তরফেও চলতি বছরে ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়া সহ মশা এবং পতঙ্গবাহিত অন্য বিভিন্ন রোগের প্রকোপ বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

শুধুমাত্র আশঙ্কাও নয়৷ ইতিমধ্যেই ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়া আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে বলে জানিয়েছে খোদ এ রাজ্যেরই সরকারি চিকিৎসকদের একটি অংশ৷ বেসরকারি চিকিৎসকদের বিভিন্ন অংশের তরফেও জানানো হয়েছে ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়া আক্রান্তের বিষয়টি৷ সরকারি-বেসরকারি চিকিৎসক সহ সমাজের বিভিন্ন অংশের মানুষের সংগঠন মেডিক্যাল সার্ভিস সেন্টারের সম্পাদক, চিকিৎসক অংশুমান মিত্রর কথায়, ‘‘এ বছর ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ইতিমধ্যেই বাড়তে শুরু করেছে৷ যে ধরনের পরিস্থিতি রয়েছে, তাতে গত বছরের থেকেও এ বছর ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্তের হার বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে৷’’

- Advertisement -

এ রাজ্যের সরকারি চিকিৎসকদের সংগঠন সার্ভিস ডক্টরস ফোরামের সাধারণ সম্পাদক, চিকিৎসক সজল বিশ্বাস বলেন, ‘‘গত বছর এ রাজ্যে কার্যত মহামারীর রূপ নিয়েছিল ডেঙ্গির পরিস্থিতি৷ এই বছর পরিস্থিতি আরও ভয়ঙ্কর হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে৷’’ কেন এই ধরনের পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে? চিকিৎসক অংশুমান মিত্র বলেন, ‘‘এ বছর গ্রীষ্মকালে যেভাবে মাঝে-মধ্যে বৃষ্টি হচ্ছে, তার জন্য পরিষ্কার জল বিভিন্ন স্থানে জমে থাকছে৷ কারণ, নিকাশি এবং রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে যে ধরনের পরিস্থিতি রয়েছে, তাতে জল জমে থাকছে৷ এই জমা জলে মশার বংশবৃদ্ধি হচ্ছে৷’’

একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়া সহ মশা এবং পতঙ্গবাহিত বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও সেভাবে কার্যকর হচ্ছে না৷ যে কারণে, চলতি বছরে ডেঙ্গি পরিস্থিতি আরও ভয়ঙ্কর হওয়ার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে৷’’ চিকিৎসক সজল বিশ্বাসও বলেন, ‘‘ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধের জন্য সেভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না৷ বৃষ্টির জলও জমে থাকছে৷ গত বছরের তুলনায় এ বছর পরিস্থিতি আরও ভয়ঙ্কর হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে৷’’

এমন আশঙ্কার বিষয়ে কী বলছেন রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী? তিনি বলেন, ‘‘গত বছরের তুলনায় এ বছর ডেঙ্গি, ম্যালেরিয়ায় আক্রান্তের হার স্বাভাবিক নিয়মেই বেশি হওয়ার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে৷ তবে, প্রতিরোধের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে৷’’ গত বছরের চার অক্টোবর পর্যন্ত রাজ্য সরকারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী কেন্দ্রীয় সরকারের এক ওয়েবসাইট বলছে, ২০১৭-য় এ রাজ্যে ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্যা ১০,৬৯৭ এবং মৃতের সংখ্যা ১৯৷ যদিও, গত বছরের চার অক্টোবরের পরের হিসাব ধরা হলে, শুধুমাত্র ডেঙ্গিতে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা আরও অনেক বেশি বলে জানিয়েছে চিকিৎসকদের বিভিন্ন সংগঠন৷

Advertisement
-----