“হাওয়াই চপ্পল” পরলেও স্বাগত জানাবে “হাওয়াই জাহাজ”

নয়াদিল্লি : হাওয়াই চপ্পলের উপর আর নিষেধাজ্ঞা রইল না বিমানে৷ জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ বৃহস্পতিবার তিনি জানিয়েছেন, “হাওয়াই চপ্পল” পরে এবার “হাওয়াই জাহাজে” ওঠা সম্ভব৷

এতদিন বিমানে ওঠার জন্য ন্যূনতম সাজপোশাকের দরকার ছিল৷ এবার থেকে আর সেই বাধা রইল না৷ বৃহস্পতিবার বাজেট পেশ করতে গিয়ে অরুণ জেটলি জানিয়েছেন, এবার থেকে সাধারণ মানুষও বিমানে উঠতে পারবেন৷ এর নাম দিয়েছেন তিনি উড়ান৷ স্লোগান- “উড়ে আম নাগরিক৷” এর জন্য জেটলির “হাওয়াই চপ্পল”কে তুলে ধরেছেন৷ বিমান যে এখন আয়ত্ত্বের মধ্যে, তা বোঝাতে রবারের ফ্লিপ-ফ্লপের কথা তুলেছেন জেটলি৷

উড়ানের কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেছেন, এবার থেকে প্রতি বছর এক বিলিয়ন ট্রিপের আয়োজন করা হবে৷ এর জন্য বিমানবন্দরের ধারণক্ষমতা প্রায় ৫ গুণ বাড়ানোর কথা ভাবা হচ্ছে৷ এর জন্য বিমানবন্দরের সংখ্যা বাড়ানোর কথা ভাবা হচ্ছে৷ বর্তমানে ভারতের বিমানবন্দরের সংখ্যা ১২৪৷ অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন, ৫৬টি আনসার্ভড বিমানবন্দর ও ৩১টি আনসার্ভড হেলিপ্যাড বানানো হবে৷

- Advertisement -

গত বছর এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উড়ান স্কিমের আওতায় প্রথম আঞ্চলিক বিমানের যাত্রাশুরু করেছিলেন৷ সিমলা-দিল্লি, কাড়াপা-হায়দরাবাদ ও নন্দেদ-হায়দরাবাদ রুটে তিনটি বিমানের উদ্বোধন করা হয়৷ এর মধ্যে কাড়াপা-হায়দরাবাদ ডোমেস্টিক ট্রাভেল একটি গুরুত্বপূর্ণ সূচনা বলে মনে করা হচ্ছে৷ প্রধানমন্ত্রী তখন ট্যুইটারে বলেছিলেন, আঞ্চলিক স্তরে যোগাযোগের জন্য উড়ান একটি বাজার ভিত্তিক প্রক্রিয়া৷ ন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন পলিসি (NCAP)-র এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান৷ ২১৬ সালের ১৫ জুন সিভিল এভিয়েশন মন্ত্রকের তরফ থেকে এটি প্রকাশ করা হয়৷

Advertisement
-----