চিন ঘেঁষা তাওয়াং-এর রাস্তায় ফুল-পতাকায় অভ্যর্থনা দলাই লামাকে

ইটানগর: চিনকে পাত্তা না দিয়ে তাওয়াং-এ প্রায় হাজার ভক্ত বৌদ্ধ ধর্মগুরু দলাই লামাকে সম্মান জানালেন। এই ভক্তরা দলাই লামাকে ‘জীবন্ত দেবতা’ হিসেবে বিশেষ সম্মানের সঙ্গে স্বাগত জানান।

ভারত চিন সীমান্তে ম্যাকমোহন অঞ্চল থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত তাওয়াং এদিন দলাই লামাকে স্বাগত জানানোর জন্য সেজে ওঠে। রাস্তাঘাট এবং বৌদ্ধ অধ্যুষিত শহরগুলিকে ধর্মীয় পতাকা, ফুল দিয়ে সাজানো হয়। বৌদ্ধ ধর্মগুরুকে এক ঝলক দেখার জন্য রাস্তায় ভিড় করেন তাঁর অনুগামী সহ বিভিন্ন সন্ন্যাসীরা। প্রত্যকের একটাই উদ্দেশ্য। দলাই লামার থেকে আশীর্বাদ পাওয়া।

দলাই লামার সান্নিধ্য পাওয়ার জন্য তাওয়াং যেখান থেকে শুরু হয় সেখান থেকে ৯০ কিলোমিটার রাস্তা জুড়ে নামে মানুষের ঢল। মানুষের ভিড় ঠেলে ডিরাং থেকে তাওয়াং পর্যন্ত ১৪০ কিলোমিটার রাস্তা অতিক্রম করতে তাঁর সময় লাগে টানা ৭ ঘন্টা।
ভোর ৪টের কিছু আগে গিয়ে তাওয়াং এর বৌদ্ধ মঠে গিয়ে ওঠেন দলাই লামা। এই মঠটি তিবত্তের পোটালা প্যালেসের পর বিশ্বের বৃহত্তম বৌদ্ধমঠ। সেখানে পৌঁছে লামা ভক্তদের থেকে সম্মান পেয়ে আবেগপ্রবন হয়ে পড়েন বলে সূত্রের খবর। তিনি বলেন, “তোমরা সবাই আমার জন্য সারা দিন ধরে অপেক্ষা করেছ। আমি ভুলতে পারবো না যেভাবে তোমরা সবাই আমাকে শ্রদ্ধা জানিয়েছ কিন্তু দুঃখজনকভাবে আমি কিছুই করতে পারিনি।”

শুধু তিব্বতের অনুগামীরাই নয়। এদিন আমেরিকা, ইংল্যান্ড, জার্মানি, ভুটান, নেপাল, সিকিম, অসম, হিমাচল প্রদেশ থেকেও বহু সন্ন্যাসী এবং অনুগামীরা দেখতে আসেন দলাই লামাকে। তাওয়াং এর এক প্রবীন অনুগামী জানান, “মানুষের মধ্যে এত উত্তেজনা আর আশা কারণ আমরা জানি না আবার পরে কবে তিনি এখানে আসবেন। উনি আমাদের জন্য ‘জীবন্ত ঈশ্বর’। আমরা নিজেদের ভাগ্যবান মনে করি ওনাকে পেয়ে।”

৮১ বছরের এই বৌদ্ধ ধর্মগুরুর সফরে তাঁর সঙ্গী ছিলেন অরুণাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পেমা খানডু, এবং স্পিকার টি এন থংডক। এছাড়া ছিলেন বিধায়ক ও উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। এর আগে অরুণাচল প্রদেশ সরকার এমন কোনও সফরের সাক্ষী হয়নি।

দলাই লামার সফরে তাওয়াং-ই ছিল তাঁর প্রথম গন্তব্যস্থল। কিন্তু আবহাওয়ার কারণে বদলে যায় সেই পরিকল্পনা। তাঁর এই সফরকে সফল করার জন্য বারবার অরুণাচল প্রদেশ সহ সারা ভারতকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন দলাই লামা। ৯ দিনের অরুণাচল প্রদেশ সফরে মঙ্গলবার দলাই লামা পশ্চিম কামেং জেলার বমদিলায় যান। এই অংশকে চিন দক্ষিণ তিব্বত বলে দাবি করে। দলাই লামাকে স্বাগত জানানোর জন্য ভারতকে হুঁশিয়ারিও দিয়েছিল চিন। কিন্তু সবকিছুকে উপেক্ষা করে তাওয়াং এ বৌদ্ধ ধর্মগুরুকে আড়ম্বর করে সম্মান জানানো হয়।

চিনের উদ্দেশে দলাই লামা জানিয়েছিলেন, যে ধার্মিক ও আধ্যাত্মিক কারণেই এই সফর করছেন তিনি। তিনি এও জানান যে, স্বাধীনতা না চাইলেও তিনি তিব্বতে স্বায়ত্তশাসন চান। আগামী ১০ এপ্রিল অবধি তাওয়াং-এ থাকবেন দলাই লামা।

----
-----