তোলাবাজির অভিযোগে গ্রেফতার তিন নকল গোয়েন্দা

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: নকল গোয়েন্দা গ্রেফতার হল উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহ থেকে৷ বৃহস্পতিবার তাদের গ্রেফতার করে খড়দহ থানার পুলিশ৷ ধৃতদের মধ্যে একজনের নাম সঞ্জয় মণ্ডল৷ তিনি প্রাক্তন সিআরপিএফ কর্মী৷

অভিযোগ, সঞ্জয় নিজেকে আইবি অফিসার পরিচয় দিয়ে যোগাযোগ করেছিল খড়দহের এক পানশালা মালিকের সঙ্গে৷ তাঁর কাছ থেকে টাকা দাবি করেছিল সঞ্জয়৷ আর সেই টাকা নিতে এসেই সে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে যায় সে৷

আরও পড়ুন: প্রতি এপিসোডে ১৪ কোটি!

পুলিশ জানিয়েছে, সঞ্জয় মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা৷ সে-ই এই চক্রের মূল পাণ্ডা৷ গ্রেফতার হওয়া বাকি দু’জন ইনাদুল ইসলাম ও দেবব্রত কয়াল তার সহকারী হিসেবে কাজ করত৷ ইনাদুল নদীয়ার করিমপুরের বাসিন্দা৷ আর দেবব্রতর বাড়ি রাজারহাটে৷

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার সূত্রপাত চলতি মাসের ১৮ তারিখ। একটি স্করপিও গাড়ি নিয়ে খড়দহ থানার অন্তর্গত বারাকপুর কল্যাণী হাইওয়ের ধারে একটি পানশালায় আসে ৬ জন যুবক। তারা নিজেদের আই বি স্পেশাল ব্রাঞ্চের আধিকারিক বলে পরিচয় দেয়৷ নকল পরিচয়পত্র ওই পানশালার মালিককে দেখায়।

আরও পড়ুন: কোরবানি ভুলে কেরলবাসীকে সাহায্য মুসলিমদের

মালিককে তারা বলে, “আপনার বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ রয়েছে৷ আপনি বেআইনি কাজ চালাচ্ছেন। এই কারণে আপনার বিরুদ্ধে ৩টি লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। যদি আমাদের টাকা না দেন, তাহলে আপনার বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আপনাকে আমরা গ্রেফতার করে নিয়ে যাবো।’’

এই কথা বলে প্রথমে ১৮ তারিখ কয়েক হাজার টাকা নিয়ে যায় ওই পানশালার মালিকের কাছ থেকে। ওই দিন আরও ৫০ লক্ষ টাকা দাবি করে তারা৷ এই কথা শুনে পানশালার মালিক সেই সময় তাদের জানায় কয়েকদিন সময় লাগবে। এর পরেই তারা জানায়, ‘‘আমরা ফোন করে আসব।’’

আরও পড়ুন: বিবাদ মেটাতে দম্পতি রামকৃষ্ণ শরণে যাওয়ার পরামর্শ বিচারপতির

১৯ তারিখ পানশালার মালিক খড়দহ থানায় এই বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এরপর বৃহস্পতিবার থেকে খড়দহ থানার পুলিশ পানশালাটির সামনে ওই আই বি অফিসার পরিচয় দেওয়া প্রতারকদের গ্রেফতার করতে সাদা পোশাকে নজরদারি চালাচ্ছিল।

বৃহস্পতিবার রাতে আইবি অফিসার পরিচয় দেওয়া ওই প্রতারকরা পানশালার মালিকের থেকে ফের ৫০ লক্ষ টাকা নিতে উপস্থিত হন । খড়দা থানার পুলিশ তৎক্ষণাৎ তিনজন প্রতারককে গ্রেফতার করে।

আরও পড়ুন: গ্রামের মাঠে অজগর দেখে ছড়াল আতঙ্ক

তবে ওই দলে থাকা আরও তিনজন পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। কিন্তু তাদের স্করপিও গাড়িটি আটক করে খড়দহ থানার পুলিশ। খড়দহ থানায় পুলিশ তিনজন প্রতারককে জেরা করে ওই চক্রের বাকিদের গ্রেফতার করার চেষ্টা করছে।

Advertisement
---
-----