মারধরের ভয়ে হস্টেল থেকে পালাল তিন পড়ুয়া

স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: হোস্টেলের ছাত্রদের মারধরের অভিযোগ উঠল এক কলেজ কর্মীর বিরুদ্ধে৷ ঘটনাটি ঘটেছে জলপাইগুড়ি শহরের রাজবাড়ি পাড়ার আনন্দ মার্গ স্কুলে৷ মারধর সহ্য করতে না পেরে তিন পড়ুয়া হোস্টেল থেকে পালিয়ে যায়৷ স্থানীয়দের চেষ্টায় ওই তিন পড়ুয়াকে উদ্ধার করা হয়৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন টাউনক্লাব সংলগ্ন এলাকায় সন্দেহজনক ভাবে ওই তিন যুবক স্কুলের পোশাক পড়ে ঘোরাফেরা করছিল৷ স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকায় বাসিন্দাদের বিষয়টি সন্দেহজনক লাগে। এরপর তিন স্কুল পড়ুয়াকে জিঙ্গাসাবাদ করতেই উঠে আসে আসল তথ্য।

তিন ছাত্রের মধ্যে এক ছাত্র চতুর্থ শ্রেনী, দ্বিতীয় ছাত্র তৃতীয় শ্রেণীর৷ অপর এক ছাত্রের ক্লাসটি জানা যায়নি৷ একজনের বাড়ি শিলিগুড়ি ও বাকি দুই ছাত্রের বাড়ি মাথা ভাঙ্গা এলাকায়৷ তাদের অভিযোগ, হোস্টেলের সৌরভ দেব নামে এক কর্মী তাদের অত্যাচার ও মারধর করত। মারধর সহ্য করতে না পেরে তারা মঙ্গলবার পালিয়ে যায়৷

- Advertisement -

এলাকায় বাসিন্দা বিষয়টি ছোট করে না দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ এসে তিন পড়ুয়াকে থানায় নিয়ে যায়৷ তাঁরা চাইল্ড লাইন দফতরের সঙ্গে যোগাযোগ করে ওই তিন ছাত্রের জন্য৷ ঘটনার তদন্তে নামে কোতয়ালী থানায় পুলিশ৷ পুলিশ আধিকারিক দুলাল চন্দ সেন আনন্দ মার্গ স্কুলে গিয়ে স্কুলের কর্মী অভিযুক্ত সৌরভ দেব সহ প্রিন্সিপাল আর্চার্য্য শুভ মিত্রানন্দ্র অবদুতকে জিঞ্জাসাবাদ করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই হোস্টেলে মোট ১৩ জন ছাত্র রয়েছে। স্কুলের কারোর বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই৷ শুধু সৌরভ দেবের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে৷ বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানায় পুলিশ আধিকারিক দুলাল চন্দ সেন। ঘটনায় প্রশ্ন উঠেছে হোস্টেল থেকে শিশুরা পালিয়ে গেলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ কেন থানায় যোগাযোগ করেনি।

এদিকে হোস্টেলে কর্মরত অভিযুক্ত সৌরভ দেব জানান, ‘আমি স্কুলের বাচ্চাদের মারধর করি না। মঙ্গলবার সকালে সাড়ে দশ টায় তারা স্কুলের লাইনে আসে। এরপরেই তারা পালিয়ে যায়।’

Advertisement ---
---
-----