বাঘের আতঙ্কে কাঁপছে সিউড়ি, এলাকায় বনদফতর

ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: বাঘের আতঙ্কে ত্রস্ত বীরভূমের সিউড়ি৷ সিউড়ি থানার আড্ডা গ্রাম এখন কাঁপছে বাঘের ভয়ে৷ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে সাতটা নাগাদ গ্রামের একটি ধানক্ষেতে বাঘ দেখতে পান স্থানীয় এক মহিলা৷ এর পরই গোটা গ্রামে ছড়িয়ে পড়ে বাঘের আতঙ্ক৷

অভিযোগ, দিন কয়েক আগেও সিউড়ি থানার গরুঝোরা গ্রামের কয়েকজন বাসিন্দা বাঘ জাতীয় কোনো জন্তু দেখতে পান৷ খবর দেওয়া হয় বনদফতরকে৷ তবুও গ্রামের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে৷ সতর্ক হয়ে যান গ্রামের বাসিন্দারা৷ ঘটনাস্থলে পৌঁছন বন দফতরের কর্মীরা৷

সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলেন তাঁরা৷ গ্রামে একটি বাঘ ধরার খাঁচা পাতার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়৷ কিন্তু এখনও পর্যন্ত সেখানে কোনও বাঘ ধরা পড়েনি বলে জানান বন দফতরের কর্মীরা৷ বন দফতরের কর্মীরা জানান, গরুঝোরা গ্রামের মানুষের বিবরণ অনুযায়ী সেটি বাঘরোল বা বন বিড়াল হতে পারে৷ কিন্তু বাঘ হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে নতুন করে বাঘের আতঙ্ক ছড়ায় আড্ডা গ্রামে৷

- Advertisement -

এ বিষয়ে গ্রামবাসী জোৎস্না মাল জানান, গতকাল সন্ধ্যাতে মাঠের মধ্যেই কোন জন্তুর পায়ের শব্দ শুনতে পান তিনি৷ আলো জ্বালিয়ে দেখার পরেই তিনি দেখেন ডোরাকাটা কোনও এক জন্তু মাঠের পথ বেয়ে পালিয়ে যাচ্ছে৷ এরপরেই সেই জন্তুকে বাঘ ভেবে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে৷

তবে বন দফতরের কর্মীরা জানাচ্ছেন যেহেতু আড্ডা গ্রামটি গরুঝোরা গ্রামের পাশেই অবস্থিত, তাই আতঙ্ক ছড়াচ্ছে৷ গ্রামবাসীরা মনে করছেন গরুঝোড়া গ্রাম থেকে বাঘটি আড্ডা গ্রামে ঢুকে পড়েছে৷ কিন্তু বন দফতরের ধারণা বাঘ এখানে আসার কোনও সম্ভাবনাই নেই, কারণ গ্রামগুলি জঙ্গলে ঘেরা হলেও জঙ্গলটি অতটাও ঘন নয় যে বাঘ আসতে পারে।

অন্যদিকে অনেকে আবার বলেছেন এই গ্রামের ভৌগোলিক অবস্থান অনুসারে এই এলাকায় বাঘ আসার সম্ভাবনা নেই। অন্য কোনও বড়ো প্রাণী আসলেও, বাঘ আসবে না৷ তবু বাঘের আতঙ্ক গ্রামবাসীদের পিছন ছাড়ছে না৷ আড্ডা গ্রামে এখন একটা আলোচনার বিষয় বাঘ৷ যদিও শুক্রবার সকাল থেকে আড্ডা গ্রামে বন দফতরের কোনও কর্মীর দেখা মেলেনি৷