ব্রিজ নির্মাণের টাকা দিল কে! মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্যে বিতর্ক

সৌরভ দেব, শিলিগুড়ি:  হলদিবাড়ি মেখলিগঞ্জ তিস্তার ব্রিজ নির্মাণের জন্য কেন্দ্রের বরাদ্দ অর্থ রাজ্য সরকারের তহবিলের বলে দাবী করে বিতর্কে জড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ বৃহস্পতিবার হলদিবাড়ির হজুরসাহেব মাজার সংলগ্ন ময়দানে সরকারি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ৪২৪ কোটি টাকা দিলাম এই ব্রিজ তৈরির জন্য। অথচ কয়েকদিন আগে জলপাইগুড়িতে বিজেপির এক অবস্থান বিক্ষোভে যোগ দিতে এসে রাহুল সিনহা জানিয়ে ছিলেন, হলদিবাড়িতে যে সেতু নির্মাণ হচ্ছে তার অর্থ কেন্দ্রীয় সরকারের বরাদ্দকৃত ছিটমহল বিনিময় পুনর্বাসন তহবিলের টাকায়। অথচ এদিন মুখ্যমন্ত্রী দাবি করলেন, ৪২৪ কোটি টাকা রাজ্য সরকার দিয়েছে।
অপরদিকে, এদিন মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের সাফল্যের প্রসঙ্গে বলেন, রাজ্যের বিভিন্ন কাজের সাফল্য এখন বিদেশেও কদর পাচ্ছে। শুধুমাত্র রসগোল্লার জন্য পশ্চিমবঙ্গ বিদেশে এখন বিখ্যাত নয়। এই প্রসঙ্গ টানলেও রাজ্যের পুলিশ- প্রশাসনকে, বিধায়ক, সাংসদ,পঞ্চায়েত এমনকি কাউন্সিলারদের আরও ভাল কাজ করার অনুরোধ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রাজ্যের বিভিন্ন হস্তশিল্প, লোক কাজকর্ম  এখন প্যারিস,ইংল্যান্ডের সমাহৃত হচ্ছে। এই রাজ্যের শিল্পীরাও যাচ্ছেন বিদেশে। তিনি আরও বলেন সবাই মিলে আরও ভাল কাজ করলে মানুষের সুবিধা হবে। তাই সবাই মিলে ভাল করে কাজ করার বার্তা দেন মমতা।
মানুষের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা তিস্তার ওপর সেতু নির্মাণ আমাদের সরকারই করলো। আগে কেউ করেনি। এই সেতু হলদিবাড়ি মেখলিগঞ্জের মানুষের জয় তাই এই সেতুর নাম জয়ী। মুখ্যমন্ত্রী এদিন নিজের তহবিল থেকে হুজুর সাহেবের গেট করার জন্য ১ কোটি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। বেশ কিছু সরকারি প্রকল্পের শিলান্যাস ও উদ্বোধন করেন। কোচবিহার জেলা প্রশাসনিক বৈঠক করেন। এদিন জলপাইগুড়িতে ঠাকুর পঞ্চানন বর্মার মূর্তির উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে  মন্ত্রী গৌতম দেব,বনমন্ত্রী বিনয় বর্মণ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
অন্যদিকে, নিখোঁজ সাংবাদিকে চয়ন সরকার প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, আমি চাই চয়ন ফিরে আসুক। ওর পরিবার অস্বস্তির মধ্যে রয়েছেন।

Advertisement ---
---
-----