তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ, উত্তপ্ত গোসাবা

স্টাফ রিপোর্টার, বারুইপুর: প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা থেকে বাদ বিজেপি কর্মীরা৷ এর প্রতিবাদ করায় তৃণমূলের হাতে আক্রান্ত হতে হয় বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের৷ ঘটনায় মহিলা সহ আহত হয় প্রায় আটজন৷ এমনটাই অভিযোগ দক্ষিণ ২৪ পরগণার গোসাবা থানার বিপ্রদাসপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের চণ্ডীপুর গ্রামের বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের৷

মঙ্গলবার গোসাবা থানার চণ্ডীপুর গ্রামে কয়েকজন সরকারি কর্মচারী আসেন৷ তাঁরা এলাকায় প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার ঘরের সার্ভে করতে শুরু করেন। অভিযোগ, সরকারি কর্মীরা শুধুমাত্র তৃণমূল কর্মীদের বাড়িতেই সার্ভে করতে থাকেন। বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে কেন সার্ভে হবে না সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বচসা বাঁধে৷ স্থানীয় বিজেপি কর্মী স্বপন দাস, বাদল রাউতদের উপর তৃণমূল কর্মীরা চড়াও হয়ে মারধর করে বলে অভিযোগ। লাঠি, কাঠ দিয়ে মারধর করে একাধিক বিজেপি কর্মীর মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। তাঁদের বাঁচাতে গিয়ে আরও কয়েকজন বিজেপি কর্মীও আক্রান্ত হয়। অভিযোগের তির এলাকার তৃণমূল কর্মী শ্যামল রাউত, সমীর রাউত, রঞ্জন নায়েক ও তাঁদের অনুগামীদের বিরুদ্ধে৷

পড়ুন:তৃণমূলে বড়সড় ভাঙন ধরাল বিজেপি

- Advertisement -

ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় চণ্ডীপুর গ্রামে। খবর পেয়ে গোসাবা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। কিন্তু অভিযোগ, পুলিশ অভিযুক্ত তৃণমূল কর্মী শ্যামল রাউত, সমীর রাউত, রঞ্জন নায়েক ও তাদের অনুগামীদের গ্রেফতার করেনি,উলটে চারজন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়৷ এছাড়া আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের বাড়িঘরও ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ বিজেপি কর্মীদের তরফে। যদিও এই ঘটনায় তৃণমূল কর্মীদের জড়িত থাকার কথা পুরোপুরি অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব।

Advertisement
---