পঞ্চায়েত ভোটের দায়িত্ব থেকে সরানো হল মেয়র শোভনকে

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কদিন আগেই তাঁর নিরাপত্তার ডানা ছাঁটা হয়েছিল৷ এবার দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার পঞ্চায়েত ভোটের দায়িত্ব থেকেও সরিয়ে দেওয়া হল কলকাতার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে৷

যদিও এখনও খাতায় কলমে দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা তৃণমূলের সভাপতি পদে রয়েছেন শোভনবাবুই৷ যদিও কতদিন তাঁকে ওই পদে রাখা হবে তা নিয়ে দলের অন্দরেই জোর প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷

আরও পড়ুন: আমাদের দাদাই পরের ‘ক্যাপ্টেন’, তরজায় মেতে কর্মীরা

- Advertisement -

তৃণমূল সূত্রের খবর, পঞ্চায়েত নির্বাচনের রূপরেখা নিয়ে বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা তৃণমূলের বৈঠক ছিল৷ নির্বাচন পরিচালনার জন্য এদিনের বৈঠক থেকে গঠিত হয় জেলা স্টিয়ারিং কমিটি৷ সেখানেই স্টিয়ারিং কমিটির কোনও পদেই রাখা হয়নি শোভনবাবুকে৷ শোভনবাবুর পরিবর্তে জেলায় পঞ্চায়েত নির্বাচন দেখভালের দায়িত্বে আনা হয়েছে শুভাশিস চক্রবর্তী ও অঞ্জন দাসকে৷ অর্থাৎ এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলায় দলের কারা প্রার্থী হবেন, সেক্ষেত্রে শোভনবাবুর কার্যত কোনও ক্ষমতায় রইল না৷

জানা গিয়েছে, আগামী সপ্তাহ থেকেই নয়া স্টিয়ারিং কমিটি পুরোদমে জেলায় কাজ শুরু করে দেবে৷ তাৎপর্যপূর্ণভাবে এদিনের বৈঠকে অনুপস্থিত ছিলেন শোভনবাবু৷ পঞ্চায়েতের দায়িত্ব থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার প্রশ্নেও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি মেয়রের৷

আরও পড়ুন: ভোটচুরি না করলে নন্দীগ্রামে জিতবে না তৃণমূল: বিস্ফোরক বিজেপি

ইতিমধ্যেই স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের গোলমাল আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে৷ ডিভোর্স চেয়ে আদালতে গিয়েছেন কলকাতার মেয়র৷ দু’পক্ষই সংবাদ মাধ্যমের কাছে পরস্পরের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন৷ রাজনৈতিক মহলের মতে, তার ফলে বিড়ম্বনায় পড়েছেন স্বয়ং দলনেত্রী৷ দলের রাজ্যস্তরের এক নেতার কথায়, ‘‘রত্নাদেবীর সঙ্গে শোভনবাবুর বিয়ের মধ্যস্থতাকারী ছিলেন স্বয়ং দলনেত্রী৷ ফলে তাঁদের সম্পর্ক বিচ্ছেদ আটকাতে আসরে নেমেছিলেন দিদিমণি৷ যদিও নিজের সিদ্ধান্তে অনড়ই থেকেছেন শোভন৷ ফলে শোভনের ওপর যারপরনাই ক্ষুব্ধ দলনেত্রী৷’’

আরও পড়ুন: বাংলার পদ্মফুল কার হাতে উৎকণ্ঠায় কর্মীরা

দলের নির্ভরযোগ্য সূত্রের খবর, এরপরই জেড প্লাস নিরাপত্তা থেকে জেড ক্যাটাগরিতে নামিয়ে আনা হয় মেয়রের নিরাপত্তা৷ এবার দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার পঞ্চায়েতের দায়িত্ব থেকেও সরিয়ে দেওয়া হল শোভনবাবুকে৷ কলকাতার দাপুটে মেয়রের ডানা ছাঁটার প্রক্রিয়া ধীরে ধীরে শুরু হল বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল৷ তবে আদৌ এই জল্পনা সত্যি হয় কি না, সময়েই মিলবে তার সদুত্তর৷

আরও পড়ুন: আঁটঘাট বেঁধে বঙ্গ দখলের লক্ষ্যেই সেনাপতির নাম ঘোষণায় সাবধানী মোদী

Advertisement
----
-----