কারগিলের বীর শহিদ স্মরণে মমতাকে ‘টেক্কা’ মোদীর দলের

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: কারগিল যুদ্ধে নিহত বাঙালি শহিদ সেনা অফিসারের স্মরণে তৃণমূলকে টেক্কা দিল রাজ্য বিজেপি। মহাধূমধামে একুশে জুলাই পালিত হয়। কিন্তু কারগিল দিবসে শহিদ সেনা অফিসার কণাদ ভট্টাচার্যকে স্মরণ করতে গিয়ে ভুল হয়ে যায়। এখানেই মমতা বন্দ্যোপাধায়ের তৃণমূল কংগ্রেসকে টেক্কা দিচ্ছে রাজ্যে এই মুহূর্তে তাঁর প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বিজেপি।

ক্যাপ্টেন কণাদ ভট্টাচার্যের ভিটের সামনেই রয়েছে তাঁর নামাঙ্কিত পার্ক। রয়েছে তাঁর আবক্ষ মূর্তি। সেখানে গেলেই দেখা মিলবে এক অদ্ভূত চিত্রের। শহিদ ফৌজি অফিসারের মূর্তিতে মাল্যদান করে গিয়েছে বিজেপি। রাখা হয়েছে একটি ব্যানারও।

আরও পড়ুন: আগুনের কবলে কলেজ স্ট্রিট কফি হাউস

- Advertisement -

তাতে স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা রয়েছে কারগিল বিজয় দিবস উদযাপনে বিজেপির ভূমিকা। ব্যানারে রয়েছে ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, জনসংঘের প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের ছবি। মূর্তিতে মাল্যদান করেছে স্থানীয় ক্লাব টালা ফ্রেন্ডস অ্যাসোসিয়েশন। কিন্তু রাজ্যের শাসক দলের শহিদ স্মরণে বিশেষ কোনও পরিকল্পনা দেখা গেল না।

১৯৯৩ সালে পুলিশের গুলিতে নিহত ১৩ জন শহিদের স্মৃতিতে তৃণমূল কংগ্রেস উৎসর্গ করে একুশে জুলাইয়ের দিনটি। এখন সেই দিনটি তাদের ‘অঙ্গীকার দিবস’ । কিন্তু ২৬ জুলাই কারগিল দিবস উদযাপনে তাদের কোনও উদ্যোগ চোখে পড়ল না৷ অন্তত ক্যাপটেন কণাদ ভট্টাচার্যের স্মৃতিতর্পণের ক্ষেত্রে।

আরও পড়ুন: দিলীপকে গরুদান করতে চান মমতা

অথচ কারগিল যুদ্ধের সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং ক্যাপ্টেন কণাদ ভট্টাচার্যর দেহ পশ্চিমবঙ্গে আনতে দায়িত্ব নিয়েছিলেন। রাজ্যে ক্ষমতায় আসার আগে পর্যন্ত কারগিল দিবসে শহিদ সেনা অফিসারের ভিটেয় যেতেন সংসদ সদস্য সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে তৃণমূলের একাধিক নেতানেত্রী।

এখন আর সেই দিন নেই। তাই রাজ্যের বর্তমান শাসকদলের নেতানেত্রীদের দেখা মিলল না শহিদের বাড়ির আশেপাশে। এই প্রসঙ্গে কাশীপুর-বেলগাছিয়া কেন্দ্রের বিধায়ক মালা সাহা বলেন, “ বিজেপি যখন তখন মালা দিয়ে চলে যায়। আমরাও যাই। কিন্তু আজ যা বৃষ্টি হচ্ছিল তাই যাওয়া হয়নি। বিধানসভা থেকে ফিরে যাব।”

আরও পড়ুন: রাষ্ট্রপতির সফরের মধ্যেই রেললাইন ওড়াল মাওবাদীরা

কিন্তু সকালে কেন যাওয়া হল না? আবারও আবহাওয়ার দোহাই দিলেন তিনি। এদিকে বিজেপির রাজ্য সম্পাদক রীতেশ তেওয়ারি বলেন, “তৃণমূল যেখানে ভোট আছে সেখানে যায়। দেশের জন্য কে কী করল তা নিয়ে ওদের কিছু যায়-আসে না। যে বাঙালি তরুণ সেনা অফিসার দেশের জন্য প্রাণ দিলেন তাঁর কথাই রাজ্য সরকার মনে রাখল না, এটা কি যথেষ্ট দুঃখজনক নয়?”

রাজ্য বিজেপির ক্ষমতায় আসা এখনও অনেক দূরের ব্যাপার। কিন্তু কারগিল দিবস স্মরণে ক্যাপটেন কণাদ ভট্টাচার্যর স্মৃতিতর্পণ করে যে তারা আপাতত এগিয়ে রইল, সে কথা অস্বীকার করা যায় না।

আরও পড়ুন: মমতার সঙ্গে একান্তে বৈঠক করবেন ওমর আবদুল্লা

Advertisement
-----