ভোটের আগে প্রকাশ্যে আসছে শাসকদলের গোষ্ঠীকোন্দল

    প্রতীকী ছবি

    স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: ভোটের সময় যত এগিয়ে আসছে, ততই শাসকদলের সঙ্গে নির্দলের ‘ঝামেলা’ বাড়ছে৷ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অভিযোগ উঠছে, তৃণমূলের টিকিট না পেয়ে যারা নির্দল হয়ে লড়ছেন তাঁদের উপর হামলা চালাচ্ছে তৃণমূল৷ যদিও অভিযোগ মানতে নারাজ শাসকদল৷

    দিনহাটার ওকরাবাড়িতে নির্দল প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে বোমা মারার অভিযোগ উঠেছে৷ বোমার আঘাতে এক তৃণমূল কর্মীর ডান হাত উড়ে গিয়েছে৷ আহত আরও একজন৷ দু’জনকেই প্রথমে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ অবস্থা উদ্বেগজনক হওয়ায় কোচবিহার এমজেএন হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়৷

    বোমার আঘাতে হাত উড়ে গিয়েছে আজিজুল হোসেন নামে তৃণমূল কর্মীর৷ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতও গভীর৷ স্থানীয় তৃণমূল কর্মীদের অভিযোগ, ওকরাবাড়ি গ্রামপঞ্চায়েতের ছোট ফলিমারিতে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে মিছিল করছিল তৃণমূল কর্মীরা৷ সেই মিছিলেই বোমা ছোঁড়া হয়৷

    অন্যদিকে কোচবিহার-১ ব্লকের সুকটাবাড়ি এলাকায় তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে গন্ডগোলের অভিযোগ ওঠে৷ অভিযোগ, দলীয় কার্যালয়ে বসে ছিলেন বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মী৷ সেই সময় অন্য গোষ্ঠীর লোকেরা তাঁদের উপর হামলা চালায়৷ পাঁচজন আহত হয়েছেন৷ তাঁরা এমজেএন হাসপাতালে ভর্তি৷

    স্থানীয় সূত্রে খবর, এলাকায় তৃণমূলের দুই গোষ্ঠী৷ তারা একে অপরের বিরুদ্ধে পঞ্চায়েত ভোটে প্রার্থী দিয়েছে৷ যার জেরেই এই ঝামেলা৷ আহত জামিরুল মিঞা জানালেন, ‘তাঁরা মিহির গোস্বামীর গোষ্ঠীর লোক৷ এবার টিকিট দেয়নি তৃণমূল৷ তাই নির্দল হয়ে দাঁড়িয়েছে সেই কারণেই এই হামলা৷’

    হামলার অভিযোগ তৃণমূল জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষের গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে৷ যদিও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কথা অস্বীকার করেছেন জেলা নেতৃত্ব৷ তাদের দাবি, যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাঁরা তৃণমূলের কেউ নয়৷ তাই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কোনও প্রশ্নই নেই৷

    ----
    -----