স্টাফ রিপোর্টার, রামপুরহাট: হোটেলে মাছ ভাজা দিয়ে দেরি হয়েছিল। সেই অপরাধে হোটেলের দুই কর্মীর কপালে জুটল বেদম প্রহার।

Advertisement

হবে নাই বা কেন? কোনও সাধারণ মানুষ তো খেতে বসেনি। বসেছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা। যাদের হাতে রাজ্যের মানুষের দায়িত্ব রয়েছে। যে সাধারণের জন্য কাজ করে তার পাতে খাবার আসতে দেরি কেন হবে? তাও আবার মাছ ভাজা।

ঘটনাটি বীরভূম জেলার রামপুরহাটের। অভিযুক্ত ব্যক্তি রামপুরহাট ১ নম্বর ব্লকের তৃণমূল যুব সভাপতি পান্থ দাস। ঘটনাটি ঘটেছে রামপুরহাটের ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের মাঝখন্ড মোড়ের কাছে একটি হোটেলে।

হোটেল সূত্রে জানা গিয়েছে, পান্থবাবু এক অনুগামীকে নিয়ে হোটেলে খাবার খেতে ঢোকেন। হোটেলের কর্মচারীরা জানিয়েছেন যে পান্থ বাবু মাছ ভাজা চেয়েছিলেন সেটা দিতে একটু দেরি হওয়ায় এর পরেই উত্তেজিত হয় প্রসেনজিৎ মন্ডল নামে এক হোটেল কর্মীকে চড় মারেন ওই তৃণমূল নেতা।

অন্য এক হোটেল কর্মী প্রতিবাদ করতে গেলে হোটেল কর্মচারী হেমন্ত মণ্ডল কে লাথি মারেন তৃণমূল নেতা পান্থ দাস। পুরো ঘটনাটি হোটেলের সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়েছে। সেই মারের দৃশ্যটিও ধরা পড়েছে। ঘটনায় বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন ওই তৃণমূল নেতা।

মারধরের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন তৃণমূল নেতা পান্থ দাস। বিষয়টির জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন। তিনি বলেন, “আমি মাছ ভাজা চেয়েছিলাম কিন্তু তা না দেওয়ায়, মাথার ঠিক রাখতে পারি নি। আমার ভুল হয়ে গেছে, আমি ওদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেব।” যদিও হোটেল কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে পান্থ দাসের বিরুদ্ধে থানাতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হবে।

----
--