প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: জেলাজুড়ে সবুজ আবিরের ছড়াছড়ি৷ কোচবিহারের ১২৮টি গ্রামপঞ্চায়েতের ১২৯৫টি আসনে ভোট হয়েছে৷ এরমধ্যে এক হাজারেরও বেশি আসন দখলে রেখেছে তৃণমূল৷ নির্দল পেয়েছে ১০৮টি আসন৷ বিজেপির দখলে ১০৭৷ তবে সবথেকে অবাক করেছে এ জেলায় বামেদের ফলাফল৷ মাত্র ১২টি আসনে জয় পেয়েছে তারা৷ কংগ্রেসের দখলে ৭টি আসন৷

কোচবিহার জেলা পরিষদের ৩৩টি আসনের মধ্যে সবকটিতেই জয়ের পথে তৃণমূল৷ বিজেপির ঝুলিতে কোচবিহার-১ ব্লকের জিরানপুর ও মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের ঘোকসাডাঙ্গা গ্রামপঞ্চায়েত৷ মেখলিগঞ্জ ব্লকের উছলপুখুরি, জামালদহ, চ্যাংরাবান্ধা, রানিরহাট গ্রামপঞ্চায়েত তৃণমূলের দখলে৷ আবার ভোটবাড়ি, নিজতরফ, কুচলিবাড়ি বাগডোগড়া ত্রিশঙ্কু হয়েছে৷

Advertisement

আরও পড়ুন: LIVE UPDATE রাজ্যজুড়ে সবুজ-ঝড়েও পদ্ম-কাঁটায় বিদ্ধ মমতার দল

পঞ্চায়েত সমিতির ২৬১টি আসনে আজ গণনা হয়েছে৷ যার মধ্যে এখনও পর্যন্ত ৬৫টি দখলে রেখেছে তৃণমূল৷ বিজেপি ১টি ও নির্দল ২টি আসনে জয়ী হয়েছে৷ এদিন ভোটগণনাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই উত্তেজনা ছিল কোচবিহারের বিভিন্ন গণনাকেন্দ্রে৷ তুফানগঞ্জ-১ ব্লকে গণনা বয়কট করে সিপিএম৷ জেলা সিপিএম নেতা তমসের আলি জানিয়েছেন, নির্বাচন প্রহসনে পরিনত হয়েছে৷ তাই গণনায় শামিল হওয়ার কোনও মানে নেই৷

মাথাভাঙা ও হলদিবাড়িতেও বিজেপির কাউন্টিং এজেন্টকে ঢুকতে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগ উঠছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে৷ এদিন মাথাভাঙ্গা-১ ব্লকে ভোট গণনাকেন্দ্রের ভিতরেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পরে তৃণমূল ও নির্দল প্রার্থীর সমর্থকরা৷ উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়৷ কিছুক্ষণের জন্য গণনা বন্ধও রাখা হয়৷

আরও পড়ুন: ‘বিজেপিকে গালি দেওয়ার জন্য দুধকুমারকে জিতিয়েছি’

মেখলিগঞ্জেও ভোটগণনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায়৷ পুলিশ তৃণমূল কর্মীদের উপর লাঠিচার্জ করে বলেও অভিযোগ৷ এরপরই পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট, পাথর আসতে শুরু করে৷ পুলিশের কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুরও করা হয়৷

----
--