‘মোদী-মমতা আঁতাতেই নির্বাচনে জিতেছে তৃণমূল’

কলকাতা: বাম-কংগ্রেস জোট না হলে বিধানসভায় বিরোধী দলের আসনে বসতো বিজেপি। জোটের ভরাডুবির পরেও এটিকেই নিজেদের সাফল্য বলে মনে করছেন সিপিএম নেতা তথা জোটের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী সূর্যকান্ত মিশ্র। একইসঙ্গে তৃণমূলের জয়ের পিছনেও মোদী-মমতা আঁতাতের অভিযোগ তুলেছেন তিনি।
surya
পদ্ম ফুলের সঙ্গে ঘাসফুলের ‘সমঝোতা’র কারণেই তৃণমূল বিপুল সংখ্যা গরিষ্ঠতা পেয়েছে বলেও দাবি করেছেন সূর্যকান্ত মিশ্র। তাঁর কথায়, “বাম-কংগ্রেস জট নিয়ে আমাদের আরও আগে আসরে নামা দরকার ছিল। প্রথম দিকে অনেক প্রশ্ন উঠেছিল আমাদের জোট নিয়ে। কিন্তু। এই জোট না হলে আসন সংখ্যায় তৃণমূলের পরেই থাকত বিজেপি। যেটা রাজ্যের পক্ষে খুব ভয়ংকর হতো।” কেবল মুখের কথা নয় তৃণমূল-বিজেপি গোপন বোঝাপড়ার বিষয়ে নিজের যুক্তিও দেখিয়েছেন সূর্যবাবু। সিপিএমের রাজ্য সম্পাদকের যুক্তি অনুসারে, “রাজ্যে দু’টি বিধানসভা কেন্দ্রের ফলাফল দেখলেই তৃণমূল-বিজেপি গোপন বোঝাপড়ার বিষয়টি পরিষ্কার বোঝা যায়। প্রথমটি হল কলকাতার ভবানীপুর কেন্দ্র, যেখান থেকে জিতেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, ২০১৪ সালে লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে ওই কেন্দ্রেই বিজেপির থেকে পিছিয়ে ছিল তৃণমূল কংগ্রেস। অপরটি হল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর সদর কেন্দ্র, যেখানে বিজয়ী হয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেখানে গত দশবারের বিজয়ী কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা জ্ঞান সিং সোহন পাল হেরে গিয়েছেন এবং তৃণমূল নামমাত্র ভোট পেয়েছে।” তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে এইরকম ভোট ভাগাভাগি রাজ্যের বেশকিছু আসনে হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন পরাজিত জোটের সেনাপতি সূর্যকান্ত মিশ্র।

Advertisement
----
-----