টিএমসিপি গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে কলেজে অশান্তির ছায়া, আসরে শোভন পত্নী

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সপ্তাহ শেষে টিএমসিপি গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে কলেজে অশান্তির শনির ছায়া৷ মহানগরের দুই কলেজে অশান্তির জের৷ আর দুই ক্ষেত্রেই অভিযুক্ত তৃণমূল ছাত্র পরিষদ৷ তার থেকেও বড় চমক, আচমকা সেই আসরে দেখা গেল খোদ শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রীকে৷ পারিবারিক বিবাদের জেরে তিনি এই মুহূর্তে রাজ্যের অতি পরিচিত মুখ৷ দ্রুত রাজনীতিতে নামতে চলেছেন রত্না৷

তোলাবাজিকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার সেন্ট পলস্ কলেজে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে টিএমসিপির দুই গোষ্ঠী৷ তার জেরে শনিবার কলেজ ফেস্ট বাতিল করে দেয় কর্তৃপক্ষ৷ আবার এই দিন দুপুরে বেহালার পর্ণশ্রী কলেজ ছিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তপ্ত৷

জানা গিয়েছে, উপস্থিতির হার কম থাকায় কিছু পড়ুয়াকে পরীক্ষায় বসতে দেবে না বলে জানিয়ে দেন পর্ণশ্রী কলেজের অধ্যক্ষা শর্মিলা মিত্র৷ প্রথম বর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের অভিযোগ, তৃণমূল ছাত্র সংসদের নেতারা টাকা নিয়ে উপস্থিতির হার বাড়াচ্ছে৷ আর এই অভিযোগকে কেন্দ্র করেই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দুই গোষ্ঠী৷ যদিও সবকিছু অস্বীকার করেছে শাসক দলের ছাত্র সংগঠনটি৷

বৃহস্পতিবার তোলাবাজিকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে অশান্তি ছড়ায় সেন্ট পলসে্৷ জানা গিয়েছে আগামী ২৭ নভেম্বর সেখানে ফেস্টের অনুষ্ঠান৷ অভিযোগ, কলেজ ফেস্টের জন্য ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে হাজার হাজার টাকা তুলছিল টিএমসিপির এক গোষ্ঠী৷ বিষয়টি সামনে আনে টিএমসিপির অন্য গোষ্ঠী৷ আর এই টাকা তোলাকে কেন্দ্র করেই সংঘর্ষে বেধেছিল দুই গোষ্ঠীর মধ্যে৷ যদিও প্রাথমিকভাবে তখন সংঘর্ষের অভিযোগ অস্বীকার করে কলেজ কর্তৃপক্ষ৷ এদিন এই অশান্তির জেরেই কলেজ ফেস্টের অনুষ্ঠান বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷

এক তদন্ত কমিটি গঠন করেছে সেন্ট পলস কলেজ কর্তৃপক্ষ৷ তবে টিএমসিপির রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য সেন্ট পলসে্র ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বলেন, ‘‘আমি বর্তমানে উত্তরবঙ্গে রয়েছি দলের কাজে৷ কলেজ কর্তৃপক্ষের মতো আমিও একটা তদন্ত কমিটি গড়েছি৷ তারা আমাকে রির্পোট দেবে৷ যদি কেউ দোষী হয় তারা অবশ্যই শাস্তি পাবে৷ তবে আমি এখানে বসে কাউকে দোষী বা নির্দোষ আখ্যা দিতে পারি না৷’’

এদিকে শনিবার বেহালার পর্ণশ্রী কলেজ চত্বর জুড়ে অশান্তি ছড়ায় তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীকে কেন্দ্র করে৷ ছাত্র-ছাত্রীদের অভিযোগ, কলেজের ছাত্র সংসদকে টাকা দিলে তবেই তারা পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করে দিচ্ছে৷ অধ্যক্ষা শর্মিলা মিত্র জানিয়ে দিয়েছেন ৭৫ শতাংশ উপস্থিতির হার না থাকলে পরীক্ষায় বসতে দেবেন না৷ এরপরেই প্রথম বর্ষর কিছু ছাত্র নেতা নাকি টাকা নিয়ে এই কাজ করছে বলে অভিযোগ তুলেছে কলজেরই ছাত্র সংসদের অন্য নেতারা৷ আর তাতেই ছড়ায় অশান্তি৷

রাজ্যসভাপতি তৃণাঙ্কুর গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের তত্ত্ব অস্বীকার করেছেন৷ তাঁর দাবি, ‘‘উপস্থিতির হার নিয়ে একটা সমস্যা হয়েছে ঠিকই৷ কিন্তু সেটা কোনও গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নয়৷ কিছু হলেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের আখ্যা দিয়ে দেওয়া বিষয়টি ঠিক নয়৷ মানুষের সামনে সত্যিটা আসা দরকার৷’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘প্রথম বর্ষের কিছু ছাত্র দীর্ঘদিন কলেজে আসেনি, ক্লাস করেনি৷ তাই তাদের পরীক্ষায় বসতে দেওয়া হবে না বলে জানায় কলেজ কর্তৃপক্ষ৷ আর তারা টিএমসিপির ছাত্র নেতাদের বলেন সেই বিষয়টি নিয়ে অধ্যক্ষার সঙ্গে কথা বলতে৷ কিন্তু তারা সাফ জানিয়ে দেয় কোনও রকম অনৈতিক কাজ করবে না টিএমসিপি৷ আর তাতেই সমস্যার সূত্রপাত৷’’

বেহালা পর্ণশ্রী কলেজের প্রাক্তনী ছিলেন প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ তাঁর স্ত্রী রত্নাদেবী এদিন গোষ্ঠী সংঘর্ষের বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন৷