তৃণমূল নেতার বিজেপিতে যোগদানের গুজব ঘিরে রণক্ষেত্র জয়পুর

প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: ফের শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে উত্তপ্ত হল বাঁকুড়ার জয়পুরের বৈতল বাজার। তৃণমূলের দুই যুযুধান গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন পাঁচজন। এদের মধ্যে তিনজনকে বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, জয়পুরের বৈতল এলাকার তৃণমূল নেতা জাকির হোসেন ও বাবুর আলি কোটাল৷ ওই দুই নেতার অনুগামীদের মধ্যে বিবাদ দীর্ঘদিনের। এলাকার দখল নিয়ে এই দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষের ঘটনা নতুন কিছু নয়। সোমবার ফের এই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটল।

আরও পড়ুন: বিজেপি বিধায়ক প্রবেশ করার পর গঙ্গাজলে ধুয়ে শুদ্ধ করা হল মন্দির

- Advertisement -

বাবুর আলি গোষ্ঠীর সদস্যদের অভিযোগ, এদিন তাঁরা বাজারে এসেছিলেন। সেই সময় জাকির হোসেনের আশ্রিত কিছু দুষ্কৃতী তাঁদের মারধর করে। এই ঘটনায় মহম্মদ আলি খান, মোহন আলি খান ও রফিকুল কোটাল নামে তিন তৃণমূল সমর্থক গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছেন। একই সঙ্গে আহত দু’জনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর স্থানীয় হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বাবুর আলি কোটালের গোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে পরিচিত মহম্মদ আলি খান নামে এক তৃণমূল কর্মী৷ তিনি আহত হয়েছেন৷ তিনি এই ঘটনায় জাকির হোসেন গোষ্ঠীর গিয়া কানা, সেখ আপুর দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন।

আরও পড়ুন: কামারহাটিতে ক্লাব ভাঙচুরে অভিযুক্ত তৃণমূল

অন্য এক আহত মোহন আলি খান৷ তিনিও তৃণমূল কর্মী৷ তিনি বলেন, ‘‘গতকাল থেকে এই ঘটনার সূত্রপাত। বাজারে কেউ বা কারা রটিয়েছে বাবুর আলি কোটাল বিজেপিতে যোগ দিয়েছে। একই সঙ্গে স্থানীয় একটি তৃণমূলের পার্টি অফিসে বোমা মারার মিথ্যে রটনা ঘটায়। তার পরেই এই মারধরের ঘটনা৷’’

এলাকায় উত্তেজনা রয়েছে। বিশাল পুলিশ বাহিনী এলাকায় টহল দিচ্ছে। পুলিশ জানিয়েছে, এলাকার পরিস্থিতির উপর কড়া নজরদারি চালানো হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: রাতভর ঘরের টিনে জড়িয়ে রইল বিষধর সাপ

জাকির হোসেন ও বাবুর আলি কোটালের এবিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। জেলা তৃণমূলের পক্ষ থেকে বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

Advertisement ---
-----