জেনে নিন ভারতীয় চলচ্চিত্রের দেবকী বসুকে

আজ দেবকী বসু’র জন্মদিন। বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম শীর্ষ পরিচালক, লেখক, ও অভিনেতা অবশ্য দেবকী কুমার বসু নামেও পরিচিত ছিলেন।

তিনি ১৮৯৮ সালের ২৫ নভেম্বর পরাধীন ভারতবর্ষে বর্ধমানে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা ছিলেন সেখানকার নামকরা উকিল৷ মহাত্মা গান্ধীর অসহযোগ আন্দোলনে উৎসাহিত হয়ে তিনি পরীক্ষায় ফেল করেন৷ কর্মজীবনের শুরুতে স্থানীয় বাজারে তোয়ালের দোকান করেছিলেন।তারপর এক স্থানীয় সাপ্তাহিক পত্রিকা শক্তির সম্পাদকও ছিলেন। কলকাতার খ্যাতিমান পরিচালক ধীরেন্দ্রনাথ গাঙ্গুলী বর্ধমান এসে দেবকীর লেখনী শক্তির কথা জেনে তার সঙ্গে দেখা করেন এবং তাঁকে কলকাতা এসে সিনেমার চিত্রনাট্য লেখার জন্য আহবান জানান। তখন তিনি ধীরেন্দ্রনাথ গাঙ্গুলীর ব্রিটিশ ডমিনিয়ন ফিল্মসের অধীনে কাজ শুরু করেন৷ পরে প্রমথেশ বরুয়ার বরুয়া ফিল্মস এবং সবশেষে ১৯৩২ সালে তিনি নিউ থিয়েটার্স -এ যোগ দেন। তিনি ১৯৪৫ সালে নিজের প্রযোজনা সংস্থা খোলেন, যার নাম দেবকী প্রোডাকশন্স।‘কামনার আগুণ’ নামে তার লেখা কাহিনী ব্রিটিশ ডমিনিয়ন ফিল্মসের এই চলচ্চিত্রটি চরম সাফল্য লাভ করেছিল৷ দেবকী বসু তার সময়ে সেরা ভারতীয় চলচ্চিত্র পরিচালক ছিলেন। তার সময়ে, অনেক বাংলা সিনেমা হিন্দি এমনকি মারাঠি এবং তামিল ভাষায় মুক্তি পেয়েছিল। ১৯৭১ সালের ১৭ নভেম্বর কলকাতা তাঁর মৃত্যু হয়৷

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক উল্লেখযোগ্য সাফল্যগুলি
চণ্ডিদাস(১৯৩২), তার পরিচালি চলচ্চিত্রে প্রথম নেপথ্য সঙ্গীত যুক্ত হয়, সঙ্গীত পরিচালক ছিলেন রাইচাঁদ বড়াল, যিনি আর.সি. বড়াল নামেও পরিচিত।
সীতা (১৯৩৪), ইস্ট ইন্ডিয়া ফিল্ম কোম্পানির ব্যানারে নির্মিত চলচ্চিত্র, এটি প্রথম ভারতীয় চলচ্চিত্র, যেটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। এটি ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয় এবং সন্মনমা ডিপ্লোমা লাভ করে। তিনি প্রথম ভারতীয় পরিচালক যিনি আন্তর্জাতিক পুরস্কার লাভ করেন।
সাগর সঙ্গমে (১৯৫৯) ৯ম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে গোল্ডেন বিয়ার বিভাগে মনোনীত হয় (১৯৫৯)। এই চলচ্চিত্রটি ১৯৫৯ সালে ৬ষ্ঠ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করে।
অর্ঘ (১৯৬১) বিশেষ তথ্যচিত্র, পশ্চিমবঙ্গ সরকার প্রযোজিত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম বার্ষিকীতে।এটি রবীন্দ্রনাথের ৪টি কবিতাঃ পূজারিণী, পুরাতন ভৃত্য, অভিসার এবং দুই বিঘা জমি-র অবলম্বনে তৈরি।
তিনি ১৯৫৭ সালে সঙ্গীত নাটক একাডেমী পুরস্কার লাভ করেন।
তিনি ১৯৫৮ সালে পদ্মশ্রী পুরস্কার লাভ করেন।
১৯৫৯ সালে ১ম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিল তাঁর পরিচালিত ছবি – ভগবান শ্রী কৃষ্ণ চৈতন্য৷

Advertisement
---