চাপ মুক্ত থাকতে যোগে অভ্যস্ত হবেন তৃণমূলের স্বাস্থ্যকর্মীরা

বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: মানসিক চাপ থেকে মুক্ত থেকে পরিষেবা স্বাভাবিক রাখতে হবে সরকারি হাসপাতালে৷ আর, এই লক্ষ্য পূরণের জন্য, তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থিত স্বাস্থ্যকর্মীরা এ বার নিয়মিত যোগ অনুশীলন করবেন৷

সরকারি হাসপাতালে ক্রমে বেড়ে চলেছে রোগীর সংখ্যা৷ কলকাতার বাইরে রাজ্যের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল এবং বিভিন্ন স্তরের হাসপাতালে যেমন রোগীর ভিড় ক্রমে বাড়ছে৷ তেমনই, কলকাতার বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল এবং চিকিৎসা-শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রোগীর ভিড় তুলনায় আরও বেড়ে চলেছে৷ তবে, শুধুমাত্র রোগীর ভিড়ও নয়৷

তাঁদের সঙ্গে পরিজনরাও থাকেন৷ এবং, স্বাভাবিক কারণেই, রোগী এবং তাঁদের পরিজনদের আচরণও বিভিন্ন প্রকৃতির৷ যার জেরে, বিভিন্ন ক্ষেত্রে কোনও না কোনও বিষয় নিয়ে রোগী অথবা তাঁদের পরিজনদের সঙ্গে অনেক কথা বলে তার পরে বুঝিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়৷ আবার, এমনও হয়, রাজ্যের কোনও প্রান্ত থেকে কোনও রোগীকে নিয়ে কলকাতার কোনও হাসপাতালে গিয়েছেন তাঁর পরিজনরা, অথচ, সেখানে তাঁরা সহজে বুঝতে পারছেন না কী করতে হবে, কোথায় যোগাযোগ করতে হবে৷

- Advertisement -

এ ক্ষেত্রেও বিভিন্ন সময় সংশ্লিষ্ট হাসপাতালের কোনও না কোনও স্বাস্থ্যকর্মীকেও বুঝিয়ে দিতে হয়৷ আর, এমনই বিভিন্ন কারণে, মানসিকভাবে চাপ মুক্ত থেকে পরিষেবা প্রদানের বিষয়টি যাতে স্বাভাবিক থাকে, তারও চেষ্টা করতে হয় বহু স্বাস্থ্যকর্মীকে৷ কিন্তু, হাসপাতালের পরিবেশ হোক অথবা অন্য কোনও কারণে তৈরি মানসিক চাপ যাতে পরিষেবা প্রদানের উপর কোনও প্রভাব ফেলতে না পারে, তার জন্য এ বার সচেষ্ট হচ্ছেন তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থিত স্বাস্থ্যকর্মীরা৷

এই স্বাস্থ্যকর্মীরা মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট নামে পরিচিত৷ এবং, চিকিৎসা পরিষেবা ক্ষেত্রে মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের ভূমিকাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ কারণ, রোগনির্ণয় যদি সঠিক না হয়, তা হলে সঠিক চিকিৎসাও শুরু হবে না৷ তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থিত এই স্বাস্থ্যকর্মীদের সংগঠন ওয়েস্ট বেঙ্গল প্রোগ্রেসিভ মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট অ্যাসোসিয়েশন-এর রাজ্য সম্পাদক সমিত মণ্ডল বলেন, ‘‘নিয়মিত যোগ অনুশীলনের মাধ্যমে শারীরিক এবং মানসিক ভাবে সুস্থ থাকা যায়৷’’ একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘মানসিক চাপ মুক্তি থাকার পথ যোগ৷’’

২১ জুন আন্তর্জাতিক যোগ দিবস৷ সংগঠনের তরফে এই দিন কোনও কর্মসূচি রাখা হয়েছে? সমিত মণ্ডল বলেন, ‘‘নিয়মিত যোগ অনুশীলনের প্রয়োজন৷ তবে, বিশেষ একটি দিন পালনের বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ৷’’ একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘আমাদের সংগঠনের তরফে এখনও পর্যন্ত আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে কোনও কর্মসূচি গ্রহণ করা হয় না৷ আগামী দিনে যাতে এই দিন পালনের মাধ্যমে যোগের বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করা যায়, তার জন্য চেষ্টা হবে৷’’

শুধুমাত্র এমনও নয়৷ তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থিত স্বাস্থ্যকর্মীদের এই সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক বলেন, ‘‘সরকারি হাসপাতালে রোগীর ভিড় বাড়ছে৷ এই পরিস্থিতিতে মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টরা যাতে মানসিকভাবে চাপ মুক্ত থেকে স্বাভাবিক পরিষেবা দিতে পারেন, তার জন্য সংগঠনের তরফে নিয়মিত যোগ অনুশীলনের বিষয়টি নিয়ে ভাবা হবে৷’’ আয়ুষ বিভাগের সহায়তায় আগামী দিনে বিভিন্ন হাসপাতালে যাতে আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে শিবিরের আয়োজন করতে পারে এই সংগঠন, তার জন্য চেষ্টা চলবে বলেও জানানো হয়েছে৷

Advertisement
-----