বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: অধিকার বুঝে নেওয়ার লক্ষ্যে পশ্চিমবঙ্গে এ বার সিনেমা দেখানোর ব্যবস্থা করেছেন ডাক্তাররা৷ এবং, এমন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন এই প্রথম৷

আরও পড়ুন- তায়েকোন্দো ‘ক্ষতিকর দাওয়াই’, সরকারি নির্দেশে ক্ষুব্ধ ডাক্তাররা

চিকিৎসার অধিকারও মানবাধিকারের একটি অংশ৷ স্বাভাবিক কারণেই, দেশের সাধারণ মানুষের জন্য চিকিৎসার অধিকার সংক্রান্ত আন্দোলনও মানবাধিকার আন্দোলনেরই একটি অংশ৷ তবে, বিভিন্ন ধরনের পরিস্থিতির কারণে, কোনও কোনও ক্ষেত্রে কাউকে না কাউকে যেমন এই অধিকারের পক্ষে বক্তব্য পেশ করতেও সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় রাষ্ট্র অথবা বিরুদ্ধ মতামত রুখে দেওয়ার জন্য ‘নিয়োজিত’ সমাজের বিভিন্ন অংশের কাছে৷

তেমনই, দলবদ্ধ হয়ে অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে আন্দোলনের ক্ষেত্রেও সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় কোনও কোনও ক্ষেত্রে৷ এই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব এমনই বিষয়ের মেলবন্ধন ঘটাতে প্রস্তুত বলেও জানানো হয়েছে আয়োজকদের তরফে৷ আগামী ২৩ থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের গান্ধী ভবন অডিটোরিয়ামে বসতে চলেছে আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র প্রদর্শনের এই আসর৷ মানবাধিকার সংক্রান্ত বিষয়ের উপর নির্মিত দেশ-বিদেশের বাছাই করা সিনেমা থাকছে এই উৎসবে৷ তবে, শুধুমাত্র ডাক্তাররাই নন৷

আরও পড়ুন- ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়ার মশা মারতে ছড়া কাটল মমতার সরকার

সিনেমা দেখানোর এমন ব্যবস্থা করেছেন মানবাধিকার কর্মীরাও৷ কারণ, আন্তর্জাতিক এই চলচ্চিত্র উৎসব অর্থাৎ, ফার্স্ট কলকাতা ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৮-র যৌথ আয়োজনে রয়েছে সরকারি-বেসরকারি ডাক্তার সহ সমাজের বিভিন্ন অংশের মানুষের সংগঠন মেডিক্যাল সার্ভিস সেন্টার (এমএসসি) এবং মানবাধিকার সংগঠন সেন্টার ফর প্রোটেকশন অফ ডেমোক্র্যাটিক রাইটস অ্যান্ড সেকুলারিজম (সিপিডিআরএস)৷

এমএসসির রাজ্য সম্পাদক, ডাক্তার অংশুমান মিত্র বলেন, ‘‘চিকিৎসার অধিকার নিয়ে বিভিন্ন আন্দোলনে সিপিডিআরএস-ও অংশগ্রহণ করছে৷ বিভিন্ন আন্দোলনের সময় আমরা বুঝতে পেরেছি, এই ধরনের চলচ্চিত্র উৎসবেরও প্রয়োজন৷’’ একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘এমনও হয়, অধিকারের পক্ষে কেউ হয়তো কিছু প্রকাশ করতে চাইছেন, অথচ তিনি পারছেন না৷ এমন মানুষ এবং অধিকার নিয়ে আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত মানুষদের মেলবন্ধন ঘটাবে এই উৎসব৷’’

আরও পড়ুন- মুকুলের ছায়ায় গেরুয়া সংগঠনের নিশানায় মমতার স্বাস্থ্য দফতর

এই চলচ্চিত্র উৎসব কেন প্রথম? এমএসসির রাজ্য সম্পাদক বলেন, ‘‘মানবাধিকার সংক্রান্ত বিষয়ের উপর নির্মিত তথ্যচিত্র, স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবির প্রদর্শনী হয়েছে৷ কিন্তু, আমাদের এই আন্তর্জাতিক এই চলচ্চিত্র উৎসবে পূর্ণ দৈর্ঘ্যের ছবির জন্য স্পেশাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা থাকছে৷ দেশ-বিদেশের বাছাই করা তথ্যচিত্র, স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবির পাশাপাশি আলোচনার ব্যবস্থাও থাকছে৷’’ একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘ডাক্তারদের কোনও সংগঠনের তরফেও এই প্রথম চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন হয়েছে৷’’

আরও পড়ুন- ফের এইডসের গ্রাসে পড়বেন যৌনকর্মী-ট্রান্সজেন্ডাররা, আশঙ্কা

শিক্ষা, স্বাস্থ্য সহ মানবাধিকারের বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেশের প্রতিটি মানুষের জন্য অধিকার হিসাবে কী কী রয়েছে, আর, সে সবের মধ্য কী কী-ই-বা প্রাপ্তি ঘটছে, এই বিষয়ে সাধারণ মানুষের বিভিন্ন অংশ এখনও সেভাবে সচেতন নয় বলেই মনে করে ওয়াকিবহাল মহলের বিভিন্ন অংশ৷ আর, এই ধরনের পরিস্থিতির জেরে, অধিকারের বিষয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে আরও সচেতনতা প্রসারের লক্ষ্যে আরও বেশি সংখ্যক সচেতন মানুষের এগিয়ে আসা উচিত, এবং, এই লক্ষ্য পূরণের অঙ্গ হিসাবে আন্তর্জাতিক এই চলচ্চিত্র উৎসব সহায়ক হবে বলেও মনে করে ওই সব অংশ৷

আরও পড়ুন- ২০৩০-এর মধ্যে হবে এইডসের হার শূন্য, আশঙ্কায় হু-র লক্ষ্য

----
--