Train 18-এর টিকিটের দাম শুনলে হাঁ হয়ে যাবেন

নয়াদিল্লি: বন্দে ভারত এক্সপ্রেস অথবা Train 18 যে নামই বলুন, এই ট্রেনকে ঘিরে উৎসাহ রয়েছে অনেকেরই৷ কিন্তু এই ট্রেনের টিকিটের দাম কত তা জানেন কি? সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে খবর, Train 18-এর এসি চেয়ার কার টিকিটের দাম ১,৮৫০টাকা এবং এক্সিকিউটিভ ক্লাসের ভাড়া ৩,২৫০ টাকা৷ দিল্লি থেকে বারাণসী ট্রিপের এই ভাড়াতেই যুক্ত রয়েছে ক্যাটারিং সার্ভিস চার্জও৷

রিটার্ন জার্নি বা ফিরে আসার ক্ষেত্রে, চেয়ার কার টিকিটের মূল্য ১৭৯৫ টাকা এবং এক্সিকিউটিভ কার টিকিটের মূল্য ৩৪৭০টাকা৷ আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি এই সেমি-হাই স্পিড ট্রেনের উদ্বোধন করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ ক্লাস অনুযায়ী খাবারের মূল্যেরও তারতম্য রয়েছে৷ দিল্লি থেকে বারাণসীগামী এক্সিকিউটিভ ক্লাসের যাত্রীদের সকালের চা, জলখাবার এবং মধ্যাহ্নভোজের জন্য দিতে হবে ৩৯৯টাকা এবং চেয়ার কারের যাত্রীদের দিতে হবে ৩৪৪ টাকা৷

- Advertisement -

আবার কানপুর থেকে প্রয়াগরাজের জন্য দুই শ্রেণির যাত্রীদের যথাক্রমে ১৫৫ এবং ১২২টাকা দিতে হবে ওই খাবারের জন্য৷ আবার বারাণসী থেকে নয়াদিল্লিগামী দুই শ্রেণির যাত্রীদের দিতে হবে ৩৪৯ এবং ২৮৮টাকা৷
পুরো শীততাপ নিয়ন্ত্রিত এই ট্রেন ৮০০ কিমি এই দূরত্বে মাত্র দুটি স্টেশনে দাঁড়াবে। প্রথমে দাঁড়াবে কানপুর এবং এলাহাবাদ। ট্রায়ালের সময়ে ট্রেনটিকে প্রতি ঘন্টায় ১১২ কিমি বেগে ছোটানো হয়েছে। মনে করা হচ্ছে, এরপর যখন পুরোপুরি এই ট্রেনটি চলতে শুরু করবে তখন ট্রেনটির গতিবেগ আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী, পুরোদমে যখন দেশের ট্র্যাকে ট্রেন-১৮ ছুটবে তখন ঘন্টায় ১৮০ কিমি বেগে সেটি ছুটবে বলে খবর।

পুরো প্রযুক্তি নির্ভর তৈরি করা হয়েছে ভারতের গর্বের এই ট্রেনটি। যাত্রী সাছন্দের কথা মাথায় রাখা হয়েছে। ট্রেনের মধ্যে ওয়াই-ফাই, প্যান্সেঞ্জারদের সুবিধার জন্যে জিপিএস লাগানো হয়েছে, এলইডি লাইট, আলাদা মোবাইল চার্জিং পয়েন্ট, অটোমেটিক বায়ো-ভ্যাকুম বাথরুম, 360-degree ঘুরতে পারে এমন সিট ছাড়াও রয়েছে আরও অত্যাধুনিক প্রযুক্তি। তবে সবথেকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি হল automatic climate control system। যা কিনা এই ট্রেনে জার্নি করার সময় একটা আরামদায়ক পরিস্থিতি তৈরি করবে।