রীতি মেনে করম পরব পালন আদিবাসীদের

স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: করম পরব পালনের মধ্য দিয়ে শক্তি ও বিশুদ্ধতার প্রতীক গাছপালার পুজোয় মেতেছেন দক্ষিণ দিনাজপুরের আদিবাসী সম্প্রদায়। প্রবল উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শক্তি, সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধির প্রতীক করম দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা জুড়ে পালিত হচ্ছে। এটি মূলত আদিবাসী ও উরাও সম্প্রদায়ের মুখ‍্য পুজো৷

বিভিন্ন গাছপালার ডালপালা সহযোগে বেদি বানিয়ে রাতভর চলে করম দেবতার পুজো। সন্ধ্যায় করম বন্দনা ও পুজো শেষে সারা রাত ধরে চলে নাচ। ধামসা মাদলের তালে সেই নাচে ছোট বড় সকলেই পা মেলান। করম আসলে প্রকৃতির বন্দনা।

আরও পড়ুন: স্কুলে গুলি, সিবিআই চাইলেন দিলীপ

জেলার বালুরঘাট ব্লকের বোল্লা বদলপুর গ্রামের বিগত ১৫ বছর ধরে এই পুজো হয়ে আসছে। এই বছরও উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে করম পুজোর আয়োজন করা হয়েছিল। করম পরব উপলক্ষে দিনভর সমাজসেবা মূলক নানান কর্মকাণ্ডেরও আয়োজন করা হয়েছে।

যার মধ্যে উল্লেখ্য হল দক্ষিণ দিনাজপুরের একমাত্র জীবিত স্বাধীনতা সংগ্রামী ৯৯ বছর বয়সী সোমরা ওড়াও সহ বিশিষ্ট জনদের সংবর্ধনাও জ্ঞাপন। বদলপুরের করম পুজোয় উপস্থিত ছিলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা সহ অনেকেই। এদিন প্রকৃতি পুজোয় নিজের সম্প্রদায়ের এই পরবে সামিল হয়ে রীতিমত মাদল বাজিয়ে নাচে সামিল হয়েছিলেন মন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা স্বয়ং।

আরও পড়ুন: শিশুদের মৃত্যু মিছিলে ফের কাঠগড়ায় যোগীর সরকার

বদলপুর করম পুজো কমিটির সম্পাদক সুনীল বাঘর জানিয়েছেন, মূলত ভাদ্র মাসের চাঁদ অনুযায়ী শুক্লপক্ষে এই পরব অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। দিনভর উপবাস থেকে এতে অংশ নেওয়ার নিয়ম। করম পুজোর মাধ্যমে প্রকৃতিকেই বন্দনা করা হয়ে থাকে। উপবাস অবস্থায় দিনের শেষে প্রকৃতির উদ্দেশ্যে ফুল দূর্বাঘাস আতপ চাল ও ফল উৎসর্গ করা হয়। করম দেবতার আশীর্বাদে খরা বন্যা ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায় বলেই তাঁদের বিশ্বাস।

দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে তাঁরা বদলপুর এলাকায় করম পুজোর আয়োজন করে আসছেন। এবারে এই উৎসবকে কেন্দ্র করে ৪২ এর আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী জেলার একমাত্র জীবিত স্বাধীনতা সংগ্রামী সোমরা ওড়াওকে তাঁরা সম্মানও জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: শনির রাশিচক্রে কোনদিকে ঘুরছে আপনার ভাগ্যের চাকা?

করম উৎসবে সামিল মন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা জানিয়েছেন, আদিবাসীদের রুটিরুজি সবটাই গাছপালার উপর নির্ভর। যে ভাবে নগরায়ণের ফলে বনজঙ্গল কেটে ধ্বংস চলছে৷ তা খুবই চিন্তার বিষয়৷ এই পরিস্থিতিতে করম পুজো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই পুজোর মাধ্যমে অরণ্যকেই পুজো করা হয়ে থাকে বলেও তিনি জানান।

আরও পড়ুন: সুপার ফোরে ‘বাঘ শিকার’ ভারতের

----
-----