শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে ফের উত্তপ্ত বাঁকুড়ার পাত্রসায়র

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে ফের উত্তপ্ত বাঁকুড়ার পাত্রসায়র। শনিবার রাতে চন্দন তরফদার নামে এক তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠলো শাসক দলেরই অন্য এক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে। চন্দন তরফদার নামে ওই তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে ব্যাপক ভাঙ্গচুরের পাশাপাশি বোমাবাজি করা হয় বলে অভিযোগ।

এই ঘটনার বিবরণ সহ বিষ্ণুপুরের এসডিপিও লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে বলে দাবি করছে ওই তৃণমূল কর্মীর পরিবারের পক্ষ থেকে। যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব ঘটনার কথা অস্বীকার করেছেন। দলের পাত্রসায়র ব্লক কার্যকরী সভাপতি পার্থপ্রতিম সিংহ দলের কর্মীদের জড়িত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করে এই ঘটনাকে ব্যক্তিগত শত্রুতার ফল বলে দাবি করেছেন।

পেশায় বেসরকারি বাসের কর্মী চন্দন তরফদারের অভিযোগ, সম্প্রতি স্থানীয় একটি কবর সংস্কারে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তিনি সরব হয়েছিলেন। তাই তাঁকে আক্রমণের চেষ্টা করে। আর এই ঘটনায় তিনি সরাসরি অভিযোগের তীর তুলেছেন তার দলের এক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধেই।

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পাত্রসায়র ব্লক এলাকায় দীর্ঘদিন তৃণমূলের দু’টি গোষ্ঠী সক্রিয়। তৃণমূলের ব্লক সভাপতি স্নেহেশ মুখোপাধ্যায় পঞ্চায়েত ভোটের আগে থাকতেই ‘কার্যকরী সভাপতি’ পার্থপ্রতিম সিংহের গোষ্ঠীর দাপটে কোনঠাসা হয়ে পড়েন। অতীতে এই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের সাক্ষী থেকেছেন পাত্রসায়রের মানুষ। এবার বেতুর গ্রাম পঞ্চায়েতের আলিপুর বটতলায় একটি কবরস্থান সংস্কারের কাজ চলছিল। এই কাজ নিম্নমানের হচ্ছে এই অভিযোগ তোলায় চন্দন তরফদারকে শাসানো হয়। শনিবার রাতে এই কারণেই তার বাড়িতে হামলা করে বলে অভিযোগ। এই ঘটনা বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকার পর ফের শুরু হওয়ায় আতঙ্কিত স্থানীয় মানুষ।

ব্লক সভাপতি স্নেহেশ মুখোপাধ্যায় গোষ্ঠীর লোক হিসেবে পরিচিত চন্দন তরফদারের স্ত্রী লিলুফা বেগমের অভিযোগ, শনিবার রাতে আমি, আমার মেয়ে ও বাবা বাড়িতে ছিলাম। রাত দশটা নাগাদ জনা তিরিশেক তৃণমূল কর্মী বাড়িতে হামলা চালায়। বাড়ির দরজা শাবল দিয়ে ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে যথেষ্ট ভাঙ্গচুর চালায়। বাড়িতে থাকা সাইকেল, মোটর বাইক ভেঙ্গে দেয়। ভয়ে আমরা সিঁড়ি বেয়ে ছাদে উঠে প্রাণ রক্ষা করি। এই ঘটনায় আমরা যথেষ্ট আতঙ্কিত। প্রায় ঘন্টা দুই দুষ্কৃতীরা তাণ্ডবলীলা চালায় বলেও তাঁর অভিযোগ। যদিও এবিষয়ে স্নেহেশ মুখোপাধ্যায়ের কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Advertisement ---
-----