দেশব্যাপী ধর্মঘট শুরু, ক্ষতি দিনে ৪ হাজার কোটি

ফাইল ছবি। খবরের সঙ্গে কোনও যোগ নেই।

মুম্বই : ট্রাকের চাকা স্তব্ধ৷ শুক্রবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট শুরু করল ট্রাক মালিকরা৷ এর ফলে দেশজুড়ে চলবে না প্রায় লক্ষাধিক ট্রাক৷ এর সরাসরি প্রভাব পড়তে চলেছে বাজারে৷ ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি, টোল ফি হ্রাস সহ একাধিক দাবিতে এই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে ট্রাক মালিকদের পক্ষ থেকে৷ সূত্রের খবর, সারা দেশ জুড়ে প্রায় ৯.৩ মিলিয়ন ট্রাক চালক ধর্মধটের ডাক দিয়েছে৷ গত ১৭ মে এই ট্রাক ধর্মঘটের দিন ঘোষণা করেছিল ট্রাক সংগঠনের নেতারা৷

কেন্দ্র এবং রাজ্যের কাছে ট্রাক মালিকদের দাবি ছিল, জিএসটির আওতায় ডিজেলের দাম বেড়ে গিয়েছে। সেই দাম যেন কমিয়ে দেওয়া হয়। এমনকী জাতীয় সড়ক মেরামতির নাম করে যে মোটা টাকা টোল ফি নেওয়া হয়, তা কমানোর দাবিও জানানো হয় কেন্দ্রের কাছে। বৃহস্পতিবার এই দাবিগুলি পরিবহণ মন্ত্রী নীতীন গডকড়িকেও জানানো হয়৷

কেন্দ্রের তরফ থেকে আধিকারিকরা জানিয়েছেন যাবতীয় আশ্বাস দেওয়া সত্ত্বেও এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে৷ কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে ট্রাক চালক এবং মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করে শেষবারের মত সমাধান সূত্র বের করার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু কোনও সুরাহা হয়নি।

- Advertisement -

অল ইন্ডিয়া মোটর ট্রান্সপোর্ট কংগ্রেসের কোর কমিটির চেয়ারম্যান বাল মালকিত সিং বলেছেন পরিবহণ মন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের সঙ্গে দেখা করেও কোনও সমাধান সূত্র বের হয়নি৷ তাই ধর্মঘটের পথে যেতে বাধ্য হয়েছেন তাঁরা৷

তবে তাঁর সন্দেহ সরকার তাদের সমস্যা সমাধানে আন্তরিক নয়৷ তাদের আন্দোলন দিন দিন আরও জোরদার হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি৷ ট্রাক মালিকদের এই ধর্মঘটে প্রতিদিন দেশের ক্ষতি হচ্ছে প্রায় চার হাজার কোটি টাকা৷

শুক্রবার থেকে মুম্বইয়ের প্রায় ৮ হাজার এবং রাজ্যের প্রায় ৪০ হাজার স্কুল বাস পরিষেবা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এটা তাঁদের একদিনের প্রতিকী ধর্মঘট বলে জানিয়েছেন স্কুল বাস সংগঠনের সভাপতি অনিল গর্গ। তবে শুক্রবার থেকে ট্রাক ধর্মঘটের ফলে সবজি–ফলমূল থেকে শুরু করে বিভিন্ন পণ্যের দাম আকাশ ছোঁয়া হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

Advertisement
---