হনুমানজির জপ করে কালো সূতো পরলেই নাকি ধনসম্পত্তি ফুলে ফেঁপে উঠবে

আমাদের জীবনে রং-এর বিশেষ প্রভাব রয়েছে৷ বিভিন্ন জনের আবার বিভিন্ন রং-এ নাকি ভাগ্য খোলে৷ কিন্তু রং যদি আপনার বিপক্ষে চলে যায় তাহলে কিন্তু ভাগ্যও উল্টো পথে হাঁটতে শুরু করে৷ স্বাস্থ্য, চিন্তা-ভাবনা, পরিস্থিতি অনেক কিছুর পিছনেই কিন্তু রয়েছে রং৷ তবে তা অবশ্যই রাজনীতির নয়৷ বিশ্বাস-অবিশ্বাস রয়েছে এইসব মত কে ঘিরেও৷ তবে সেসব একটু দূরে সরিয়ে আপনারা একবার চোখ রাখতেই পারেন নিচের লেখায়৷

আরও পড়ুন: জেনে নিন কোন দিকে কোন দেবতা থাকেন?

কালো রং অনেকেই অশুভ মনে করেন৷ তাই বিয়ে বা কোনও শুভ কাজে এই রং ব্যবহার করা হয় না৷ কালো রং-এর ব্যবহারে রাহুর প্রভাব পড়ে বলে মনে করে অনেকে৷ যা জীবনে সমস্যা ডেকে আনে৷ কিন্তু এই রং আপনার সব সঙ্কট দূরও করতে পারে৷ এমনকি আর্থিক সঙ্কটমোচনেও কিন্তু কালো রং কাজে আসতে পারে৷

- Advertisement -

কালো রং যদি সত্যিই অমঙ্গল ডেকে আনত তাহলে কেন খারাপ নজর থেকে রক্ষা করার জন্য কালো টিকা দেওয়া হয় একবার ভেবে দেখুন তো! কেন কালো সুতো ঘরের দরজায় বা কোমরে বাঁধা হয় ভাবুন তো!

আরও পড়ুন: লক্ষ্মী ঠাকুরকে ঘিরে থাকা অজানা তথ্য, যা শুনলে চমকে যাবেন…

মনে করা হয় কালো রং মন্দ জিনিসকে শোষণ করে আপনাকে কালিমামুক্ত বা বিপদমুক্ত করে৷ অনেকের মতে মঙ্গলবার এবং শনিবার হনুমানজির পা-এ কালো সুতো রেখে, তা গলায় পরলে সব খারাপ প্রভাব বা আসন্ন বিপদ আপনার থেকে দূরে সরে যাবে৷ ধনসম্পত্তি-ঐশ্বর্য পেতে সপ্তাহের এই দুই দিনে কালো রং-এর রেশমি সূতো কিনে হনুমানজির মন্দিরে গিয়ে, তাঁর পায়ের সামনে বসে হনুমান চালিশা পড়তে পড়তে তাতে নয়টি গিঁট দিতে হবে৷ তাতে বজরঙ্গবলির পায়ে চড়ানো সিঁদুর লাগান৷ এরপর হনুমানজির নাম জপ করতে করতে এই সূতোটি বাড়িতে নিয়ে আসুন৷ বাড়ির প্রধান দরজায় এবার এটি বেঁধে দিতে পারেন৷ এর ফলে আপনার বাড়িতে নাকি প্রবেশ করবে সুখ সমৃদ্ধি৷ আবার এটি সিন্দুকেও বেঁধে রাখতে পারেন৷ তাতে অর্থ আসবে, বেরিয়ে যাবে না৷

যদিও এসব নিয়ে অনেকই তর্ক-বিতর্ক হতে পারে৷ আবার অনেকের কাছে এসবই কিন্তু উন্নতির প্রধান উপায়৷

আরও পড়ুন: এই জিনিসগুলো হারিয়ে ফেললে আপনার জীবনে ব্যর্থতা নেমে আসবে

Advertisement ---
---
-----