পুণ্যার্জনে গিয়ে দামোদরে তলিয়ে গেল দুই ছাত্র

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: পুণ্য লাভের আশায় শ্রাবণ মাসের শেষ সোমবার শিবের মাথায় জল ঢালতে গিয়েছিল দুই ছাত্র৷ কিন্তু শিবের মাথায় জল ঢালা অসম্পূর্ণই রয়ে গেল তাদের৷

জল ভরতে দামোদরে নামলে নদীতে তলিয়ে যায় ওই দুই ছাত্র৷ এক ছাত্রের খোঁজ পাওয়া গেলেও এখনও আরও এক ছাত্রের খোঁজ পাওয়া যায়নি৷ ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়া জেলার সোনামুখী এলাকার দামোদরের রাঙামাটি ঘাটে৷

আরও পড়ুন: BREAKING- ফের হাইকোর্টে মামলা এসএসসি চাকুরিপ্রার্থীদের

স্থানীয় সূত্রে খবর, শ্রাবণ মাসের শেষ সোমবার শিবের মাথায় জল ঢালার উদ্দেশ্যে এলাকার কয়েকজনের সঙ্গে ওই দুই ছাত্রও বেরোয়৷ বাঁকুড়ার সোনামুখীর শিরোমণিপুর গ্রামের ধূলাই স্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্র মন কর্মকার ও সাহাপুরের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র বিদ্যুৎ ঘোষ৷ এদের মধ্যে মন কর্মকারের দেহ উদ্ধার করে স্থানীয় মৎসজীবীরা৷ কিন্তু এখনও বিদ্যুতের কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি৷

শাপাশি স্থানীয় বাসিন্দারা পুলিশের ভূমিকা নিয়েও সরব হয়েছে৷ তাদের দাবি, প্রতি বছর এই সময়ে হাজার হাজার পূণ্যার্থী দামোদরের ঘাটে জল নিতে আসেন। তা সত্ত্বেও পুলিশ কোনও নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি৷

আরও পড়ুন: সংসদে প্রবেশ ও প্রস্থানে ‘নির্দল’ ছিলেন সোমনাথ

অভিযোগ, একই সঙ্গে দিনের পর দিন অবৈধ ভাবে মেশিনের সাহায্যে দামোদরের এই রাঙ্গামাটি ঘাট থেকে বালি তোলা হচ্ছে। প্রশাসন সব জেনে বুঝেও কোনও ব্যবস্থা নিতে এগিয়ে আসছে না৷ বেআইনি ভাবে বালি তোলার ফলে ওই ঘাটে প্রায় আশি ফুট গভীর গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

সেই কারণেই এমন দুর্ঘটনা ঘটে বলে অনেকের দাবি। তবে খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে পৌঁছায় সোনামুখী থানার পুলিশ। ইতিমধ্যে নিখোঁজ বিদ্যুৎ ঘোষের খোঁজে তল্লাশি শুরু করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন: বিরাট মোহভঙ্গে নেতা ধোনিতে আস্থা অনুরাগীদের

Advertisement
----
-----