অনিশ্চয়তার মুখে দুই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা

স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: দুর্ঘটনার জেরে অনিশ্চয়তার মুখে দুই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা৷ আপাতত তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷

মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে উচ্চমাধ্যমিক৷ প্রথম দিনের পরীক্ষা শেষে বিকেলে বাড়ির ফেরার সময় টোটো উলটে জখম হয় মনীষা দাস ও তন্দ্রাণী পাহান।

আরও পড়ুন: দশম ও দ্বাদশ শ্রেণীতে ফের পরীক্ষা নেবে সিবিএসই

- Advertisement -

মাথায় চোট লাগায় দু’জনকেই বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের ফিমেল সার্জিক্যাল ওয়ার্ডের ভরতি করা হয়েছে। ফলে বৃহস্পতিবার তাঁরা আদৌ পরীক্ষা দিতে পারবে কি না, তা নিয়ে চরম অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে৷ দুশ্চিন্তায় পড়েছেন দু’জনের অভিভাবকরা।

স্থানীয় সূত্রের খবর: বালুরঘাটের মাহিনগর এলাকার তন্দ্রাণী পাহান ও মনীষা দাস-সহ চার বান্ধবী খাদিমপুর গার্লস হাইস্কুল কেন্দ্রে পরীক্ষা শেষে টোটো রিকশায় বাড়ি ফিরছিল। পথে রঘুনাথপুর এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে টোটো রিকশা উলটে চারজনই জখম হয়। স্থানীয়রা তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে অন্য দুই বান্ধবীকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হলেও মনীষা ও তন্দ্রাণী ভরতি করে নেওয়া হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, দু’জনেরই মাথায় ও শরীরের অন্যান্য অংশে চোট লেগেছে। বুধবার স্ক্যানও করা হয়েছে। চিকিৎসকেরা জানিয়েছে, সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠতে বেশ কিছু দিন সময় লাগবে।

আরও পড়ুন: গেরুয়া অ্যাকশনের ফাঁদে পা দিয়ে তৃণমূলের অন্দরেই তীব্র মতান্তর

যদিও জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক নারায়ণচন্দ্র সরকার বলেন, ‘‘বিষয়টি জানা নেই৷ তবে অভিভাবকরা লিখিতভাবে জানালে আমরা হাসপাতাল সুপারের মাধ্যমে জেলা বিদ্যালয় ভবনে জানাব৷ তার ভিত্তিতে হাসপাতালেই পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হবে।’’

Advertisement ---
---
-----