স্বামীর সামনেই দুই যুবকের সঙ্গে সঙ্গমে বাধ্য হলেন স্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: ঘরের মধ্যে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে রয়েছেন স্বামী৷ একপাশে ভয়ে সিঁটিয়ে বসে দুই শিশু৷ আর এই পরিস্থিতিতেই এলাকার দুই যুবকের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করতে বাধ্য হল স্ত্রী৷

গত শনিবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটে কোচবিহারের শিতলকুচির বড় মধুসুদন গ্রামে। লোকলজ্জার ভয়ে প্রথম কয়েকদিন চুপ করেই ছিলেন ওই গৃহবধূ৷ কিন্তু মঙ্গলবার দ্বারস্থ হন পুলিশের৷

আরও পড়ুন: সুনন্দা পুষ্কর হত্যা মামলায় আদালতের রায়ে সাময়িক স্বস্তিতে শশী

- Advertisement -

ওই দিন স্থানীয় শীতলকুচি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়৷ পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে৷ পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের নাম কৃষ্ণ বর্মন ও পিন্টু বর্মন৷

প্রতীকী ছবি

নির্যাতিতার দাবি, গত শনিবার রাতে তাঁদের একটি বিয়েবাড়িতে নিমন্ত্রণ ছিল৷ তাঁরা সেখানেই গিয়েছিলেন৷ ফিরতে রাত হয়৷ বাড়ি ফিরে তাঁরা রোজকার মতো ঘুমিয়েও পড়েন৷ এর পর রাত তিনটে নাগাদ ঘরে কিছু শব্দ শুনে তিনি আলো জ্বালেন৷ তখন দেখেন ঘরের মধ্যে দাঁড়িয়ে এলাকার দুই যুবক কৃষ্ণ ও পিন্টু৷

আরও পড়ুন: খড়দায় গভীর রাতে শ্যুট আউট, গুলিবিদ্ধ যুবক

নির্যাতিতার দাবি, ঘরে সিঁদ কেটে ঢুকেছিল ওই দু’জন৷ তাঁকে দেখেই দু’জন অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি শুরু করে৷ তার পর শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব দেয়৷ কিন্তু তিনি রাজি হননি৷ বরং চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করেন৷ সেই চিৎকারে তাঁর স্বামীর ঘুম ভেঙে যায়৷ তিনি ঘটনার প্রতিবাদ করেন৷ স্ত্রীকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন৷

অভিযোগ, তখন কৃষ্ণ ও পিন্টু দু’জনে ওই দম্পতিকে ব্যাপক মারধর করে৷ ওই গৃহবধূর স্বামীকে হাত-পা বেঁধে ঘরের একপাশে ফেলে রাখে৷ ধারালো অস্ত্র দিয়ে ওই বধূর দুই সন্তানের উপর আক্রমণের হুমকি দেয়৷ তার পর জোর করে ওই বধূকে তাদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য করে৷

আরও পড়ুন: মনুয়ার মতোই স্বামীকে খুনে অভিযুক্ত শ্রাবণী

নির্যাতিতার দাবি, ঘটনার কথা কাউকে জানালে তাঁর স্বামী ও সন্তানদের খুনের হুমকি দেয় ওই দু’জন৷ তার পর রাতেই তাঁদের বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায় তারা৷ এর পর লোকলজ্জার ভয়ে ওই পরিবারের কেউই বাড়ি থেকে বের হয়নি৷ শেষে মঙ্গলবার শীতলকুচি থানায় গিয়ে ওই গৃহবধূ কৃষ্ণ ও পিন্টুর বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন৷

আরও পড়ুন: ফের ভুয়ো চিকিৎসকের হদিশ মিলল কলকাতায়

Advertisement ---
-----