অধ্যাপনায় নয়া নির্দেশিকা বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের

নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রবিজ্ঞান বা জন প্রশাসন৷ যে কোনও একটি বিষয়ে পড়লেই সরকারি অধ্যাপক পদে চাকরির সুযোগ রয়েছে দু’টি বিষয়েই৷ সম্প্রতি একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এমনই জানানো হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের পক্ষ থেকে৷

সরকারি অধ্যাপক নিয়োগের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রবিজ্ঞান এবং জন প্রশাসনের মধ্যে কি আন্তঃপরিবর্তনের সম্ভাবনা বিবেচনা করা যায়? এই বিষয়ের পরিপ্রেক্ষিতেই বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন জানিয়েছে, প্রার্থী এই দু’টি বিষয়ের যে কোনও একটি বিষয়ে পড়াশোনা করলে, দু’টি বিষয়ের সহকারি অধ্যাপক পদে নিয়োগ করা যাবে তাঁকে৷

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে রাষ্ট্রবিজ্ঞান এবং জন প্রশাসন বিষয় দু’টি একে অপরের উপর নির্ভরশীল৷ আবার, প্রকৃতিগত দিক থেকে স্পষ্টভাবে স্বতন্ত্র৷ তাই, যে সকল প্রার্থীর রাষ্ট্রবিজ্ঞান বা জন প্রশাসনে মাস্টার ডিগ্রি রয়েছে এবং এই দু’টি বিষয়ের কোনও একটিতে ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি টেস্টে উত্তীর্ণ হয়েছেন, তাঁদেরকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও তার সঙ্গে জন প্রশাসনের সহকারি অধ্যাপক পদের জন্য বিবেচনা করা হবে৷

- Advertisement -

তবে, এটা সম্ভব হবে সংশ্লিষ্ট উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দক্ষতার প্রয়োজনীয়তা অনুসারে৷ অর্থাৎ, যদি কোনও প্রতিষ্ঠান জন প্রশাসনের জন্য নিয়োগ করতে চায় তাহলে সেক্ষেত্রে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে মাস্টার ডিগ্রি ও নেট উত্তীর্ণ প্রার্থীকে বিবেচনা করা হবে সেই প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী৷ আর এই দক্ষতার প্রয়োজনীতা নির্ধারণ করবে সংশ্লিষ্ট উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান৷

Advertisement ---
-----