গুয়াহাটি: উৎসব হোক আনন্দের, উৎসব হোক অসমের সম্মান রাখার৷ এই বার্তা দিয়েই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় নতুন রঙ লাগল বিহু উৎসব৷ সংক্রান্তির দিন মাঘ বিহু বা ভোগালিতে মেতে উঠবে ব্রহ্মপুত্র-বরাক উপত্যকা৷ এ আগেই শুরু হয়ে গিয়েছে বিহু গানের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার ও রাজ্য সরকার বিরোধী অবস্থান৷ তবে চিরাচরিত যে উদ্দীপনা-উৎসাহ নিয়ে মাঘ বিহু পালিত হয় অসমে এবারও তার ব্যতিক্রম নেই৷

গুয়াহাটির বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ধরা পড়ছে বিহু গানের আসরে নাগরিকত্ব সংশোধনীর প্রতিবাদের গান৷ লোকসংস্কৃতির এই আবহেই ফুঁসছে অসম সহ উত্তর পূর্বাঞ্চল৷ বিলটির প্রতিবাদে আগেই সরকারকে ভয়ঙ্কর পরিবেশ তৈরির হুমকি দিয়েছে বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আলফা (স্বাধীনতা)৷ চিনের গোপন আস্তানা থেকে এই হুঁশিয়ারি দেয় সংগঠনের সুপ্রিম কমান্ডার পরেশ বড়ুয়া৷ আর আলফা চেয়ারম্যান স্বাক্ষরিত একটি চিঠি এসেছে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের কাছে৷ তাতে বলা হয়েছে, এবারের বিহু হোক অসম জাতির পক্ষে থেকে সরকারকে বার্তা দেওয়া৷

এই বিলকে আইনে রূপান্তরিত করে কেন্দ্রীয় সরকার চায়ে প্রতিবেশী বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তানের মতো দেশে নিপীড়নের শিকার অ-মুসলিমদের সরাসরি আবেদের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব প্রদান করতে৷ এখানেই প্রবল আপত্তি অসমের স্থানীয় রাজনৈতিক দলগুলির৷ তাদের বক্তব্য, এই আইনের বলে বাংলাদেশ থেকে বহু হিন্দু ভারতে ঢুকে পড়বেন৷ তাদের বড় অংশ চলে আসবেন অসমে৷ এতে অসমের চরম ক্ষতি হতে চলেছে৷

রাজ্য ও কেন্দ্রে বিজেপি বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ, ধর্মভিত্তিক নাগরিকত্ব প্রদানের এই বিল ধর্মনিরপেক্ষ ভারতের সংবিধানকেই আঘাত করছে৷

এতেই প্রতিবাদ মুখর অসম৷ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে রাজনৈতিক পরিস্থিতি উত্তাল৷ গুয়াহাটি, নওগাঁ, করিমগঞ্জ, তিনসুকিয়া, কোকরাঝাড়, বঙ্গাইগাঁও সহ রাজ্যের সর্বত্র চলছে বিলের প্রতিবাদে অবস্থান বিক্ষোভ৷ ইতিমধ্যেই বনধ পালিত হয়েছে৷ একাধিক গুয়াহাটি-আসাম-দরং সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পঠন-পাঠন বর্জন করেছেন পড়ুয়ারা৷ পরিস্থিতি এমন যে, অসমের নাগরিক সমাজ রাস্তায় নেমে বিলের বিরোধিতায় সরব৷ বিশিষ্ট সাহিত্যিক ড. হীরেন গোঁসাই সহ কয়েকজন বুদ্ধিজীবীর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ আনা হতেই জনরোষ আরও ছড়িয়ে পড়ে৷ পরে জামিন পেয়েছেন তাঁরা৷ বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ হচ্ছে বিজেপি কর্মীদের৷

শুধু অসম নয়, বিলটির প্রতিবাদে উত্তর পূর্বাঞ্চল ভারতের অন্যান্য রাজ্য- নাগাল্যান্ড, মনিপুর, মিজোরাম, অরুণাচল প্রদেশ ও ত্রিপুরার রাজনৈতিক পরিমণ্ডল গরম৷ নাগরিকত্ব সংশোধনীর প্রতিবাদে গত ৮ জানুয়ারি ত্রিপুরায় বনধ চলাকালীন পুলিশ গুলি চালায়৷ তাতে ৬ জন জখম হয়েছেন৷ এই ঘটনায় ত্রিপুরার উপজাতি সমাজ ক্ষুব্ধ৷ এদিকে মেঘালয়ের একাধিক স্থানেও চলেছে বিক্ষোভ৷

--
----
--