শ্রীনগর: কাশ্মীরের মানবাধিকার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে রাষ্ট্রপুঞ্জ৷ ভূস্বর্গের নাগরিকদের মানবাধিকার খর্ব হচ্ছে বলে যে রিপোর্ট দিয়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জ তাকে এবার নস্যাৎ করলেন সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত৷ ওই রিপোর্টকে ‘বিভ্রান্তিমূলক’ ও ‘উদ্দেশপ্রণোদিত’ বলেছেন সেনাপ্রধান৷ তিনি বলেন, ‘‘এই রিপোর্ট নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ার কিছু হয়নি৷ এগুলি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে করা৷’’

তিনি জানান, মানবাধিকারকে সবসময় সম্মান জানায় ভারতীয় সেনা৷ বলেন,‘‘সেনার মানবাধিকার নিয়ে কোনও প্রশ্ন তোলা উচিত নয়৷ নিরাপত্তা বাহিনী মানবাধিকারকে কতটা গুরুত্ব দেয় তা কাশ্মীরবাসী ও আন্তর্জাতিক মঞ্চের ভালোই জানা৷’’

প্রসঙ্গত, জম্মু কাশ্মীরের মানবাধিকার নিয়ে একটি রিপোর্ট পেশ করে রাষ্ট্রপুঞ্জ৷ সেই রিপোর্টে কাশ্মীর নিয়ে ভারতকে তুলোধনা করা হয়েছে৷ উপত্যকায় ভারতীয় সেনা মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে বলে অভিযোগ করা হয়৷ আরও বলা হয়েছে ২০১৬ সালের জুলাইয়ের পর থেকে লাগাতার মানবাধিকার খর্ব হচ্ছে সেখানে৷ রাষ্ট্রপুঞ্জের মানবাধিকার সংক্রান্ত শাখার প্রধান জইদ আদ আল হুসেন জম্মু ও কাশ্মীরে মানবাধিকারের হাল নিয়ে তদন্ত চেয়েছেন।

২০১৬ সালের জুলাই থেকে রাজ্যে যত জন নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে, সেগুলি নিয়ে তদন্ত হওয়া উচিত বলে তিনি ওই রিপোর্টে মন্তব্য করেছেন। উপত্যকায় নিরাপত্তাবাহিনীর বাড়াবাড়ি, বেশি সংখ্যক সেনার ব্যবহার ও পেলেট গান থেকে জখম হওয়ার যে সব ঘটনা ঘটেছে, সেই সব নিয়ে তদন্ত করার কথাও বলেছেন।

ওই বছর জুলাই মাসে হিজবুল মুজাহিদিন কমান্ডার বুরহান ওয়ানির মৃত্যু হয়৷ তার পর থেকে কাশ্মীরে হিংসাত্মক ঘটনা বহুলাংশে বেড়ে গিয়েছে৷ পাক অধিকৃত কাশ্মীরেও মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলে ওই রিপোর্টে মন্তব্য করা হয়েছে৷ ভারত এই রিপোর্টের কড়া প্রতিক্রিয়া দেয়৷

----
--