উত্তরপ্রদেশ: লক্ষ্মীবারেই অলক্ষ্মীর ছোঁয়া পেল বিজেপি

লখনউ:  লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনের পরবর্তী উত্তর প্রদেশ জুড়ে নগর নিগম নির্বাচনের ফলাফল গিয়েছিল বিজেপির অনুকূলেই৷ কিন্তু সেই নির্বাচনের ফলাফলে উঠে এসেছিল গো বলয়ের গ্রামীণ এলাকা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে মোদী ক্যারিশ্মা থেকে৷ সেই ধারা অব্যাহত৷

লক্ষ্মীবারেই অলক্ষ্মীর ছোঁয়া পেলেন মোদী-অমিত শাহ জুটি৷ কৈরানার মতো অখ্যাত আসনের নাম এখন দেশজুড়ে৷ উপনির্বাচনে এই আসনটি হারিয়েছে বিজেপি৷ এখান থেকে জয়ী হলেন রাষ্ট্রীয় লোকদলের প্রার্থী৷ শুধু কৈরানা নয়, রাজ্যের নুরপুর বিধানসভা কেন্দ্র হাতছাড়া বিজেপির৷ এখানে সমাজবাদী পার্টির উল্লাস৷

ক্ষমতায় আসার চার বছরের মাথায় উত্তর প্রদেশেই সবথেকে বড় ধাক্কা খায় বিজেপি৷ গোরক্ষপুর ও ফুলপুরের মতো দুটি প্রেস্টিজিয়াস আসন ক্ষমতাসীন বিজেপির হাতছাড়া হয়৷ গোরক্ষপুর মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের খাস তালুক আর ফুলপুর উপমুখ্যমন্ত্রী কেশবপ্রসাদ মৌর্যের এলাকা৷ তখনই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে সম্মিলিত জোটের কাছে বিজেপি কতটা শক্তিশালী ? সেই প্রশ্ন আরও বড় করে দেখা দিলে বৃহস্পতিবার৷

- Advertisement -

উপনির্বাচনগুলি বিজেপির কাছে পদ্মকাঁটার মতোই খোঁচা দিতে শুরু করেছে৷ রাজনৈতিক মহলের ধারণা, আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগে এটা বড়সড় চিন্তার কারণ মোদী-অমিত শাহ জুটির কাছে৷ গঙ্গা-যমুনা-গোমতীর তীরে তীরে কৃষক বিক্ষোভের ফল পাচ্ছেন বিরোধীরা৷ উপনির্বাচনের ফলাফলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, আগামী লোকসভা নির্বাচনে সম্মিলিত বিরোধী জোটের অবয়ব কতটা স্পষ্ট হচ্ছে ? কারণ কৈরানায় জয়ী আরএলডি নেতা অজিত সিং বিরোধী শিবিরের অন্যতম মুখ৷ সম্প্রতি কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচনের পর সরকার গড়া কংগ্রেস-জেডিএস জোটের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে তিনি ছিলেন৷ সঙ্গে বিরোধী জোটের তাবড় তাবড় নক্ষত্ররা৷

এই জোটকে কটাক্ষ করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ তুলোধোনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ দুই নেতার দাবি, কোনওভাবেই জোট আঁচড় কাটতে পারবে না৷ বিজেপির এই দাবি ফের নাকচ হল উত্তর প্রদেশেই৷ যে রাজ্যে তাদের বিপুল শক্তির সেখানেই ফের পরাজয়৷

Advertisement ---
---
-----