আহমেদাবাদ: পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের আর্থিক কেলেঙ্কারি নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর উর্জিত প্যাটেল৷ গোটা ব্যবস্থা নিয়ে কিছুটা হতাশার সুরই ফুটে উঠেছে তাঁর গলায়৷ ব্যাংকগুলিকে নিয়ন্ত্রণের জন্য আইন সংস্কার করে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হাতে ক্ষমতা বাড়ানোর দাবি তুলেছেন তিনি৷

বুধবার গান্ধীনগরে গুজরাত ন্যাশনাল ল ’ ইউনিভার্সিটির এক অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন উর্জিত প্যাটেল৷ সেখানে তিনি হতাশ হয়ে জানান, দেশের ব্যাংক ব্যবস্থায় যখনই কোনও জালিয়াতি বা বেনিয়মের ঘটেছে , তখন রিজার্ভ ব্যাংকে বসে তাঁদের খুব রাগ হয় কষ্ট হয়, ব্যথিত হই৷ কেননা , এই জালিয়াতির হয় , ব্যাংকের কিছু আধিকারিকদের সঙ্গে ব্যবসায়ী লুটেরাদের যোগসাজশে ৷ এজন্য তাদের কাঠগড়ায় দাঁড় করালে এবং নীলকণ্ঠের মতো সব বিষ পান করতে হয়৷

পড়ুন: ভারতের আর্থিক উন্নতি নিয়ে আশা প্রকাশ করল ওয়ার্ল্ড ব্যাংক

কিন্তু এই ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে তিনি তুলে ধরেন, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলিকে নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে বেশ কিছু বুনিয়াদি সমস্যা কেমন রয়ে গিয়েছে৷ তাঁর প্রশ্ন, সম্প্রতি এই ব্যাংক কেলেঙ্কারির ঘিরে দোষারোপ পাল্টা দোষারোপের চলছে অথচ এমন ঘটনা কেন ঘটে তার উৎসমূল খুঁজে বের করে তার সমাধান করতে কেউ উদ্যোগ নিচ্ছে না?

এই প্রসঙ্গে উর্জিত মনে করিয়ে দেন, ২০১৭ সালে প্রকাশিত ভারতের ব্যাংকের ক্ষেত্র সম্পর্কে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডার এবং বিশ্বব্যাংকের অ্যাসেসমেন্ট রিপোর্টটি৷ সেই রিপোর্টে উল্লেখ করে তিনি জানান, ভারতের ব্যাংক ব্যবস্থায় তদারকি ও নিয়ামক সংস্থা হিসাবে রিজার্ভ ব্যাংকের হাত -পা বাঁধা৷ বেসরকারি ব্যাংকগুলিকে নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে রিজার্ভ ব্যাংকের ক্ষেত্রে যেটুকু আইনি ক্ষমতা রয়েছে , রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের ক্ষেত্রে সেটুকু নিয়ন্ত্রণেরও ক্ষমতা নেই৷

----
--