৯৩০ মিলিয়ন ডলারে ভারতের ঘরে আসছে ছ’টি অ্যাপাচে

ওয়াশিংটন: ভারতের অ্যাপাচে হেলিকপ্টার কেনার ক্ষেত্রে অনুমোদন দিল আমেরিকা। ৯৩০ মিলিয়ন ডলারে ছটি AH-64E অ্যাপাচে হেলিকপ্টার কিনতে চলেছে ভারত। মঙ্গলবার ওয়াশিংটনের তরফে একথা জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার আমেরিকার স্টেট ডিপার্টমেন্ট জানিয়েছে, অ্যাপাচে অ্যাটাক হেলিকপ্টার বিক্রির চুক্তিতে সম্মতি জানিয়েছে সরকার। তবে চুক্তিপত্রটি এখন মার্কিন কংগ্রেসে পাঠানো হয়েছে অনুমোদনের জন্য। একজনও কংগ্রেসম্যানের আপত্তি না থাকলেই চুক্তিটি অনায়াসে পাস হয়ে যাবে।

ভারতের পার্টনার হিসেবে টাটা একটি কারখানায় হেলিকপ্টারের কাঠামো তৈরি করে। বোয়িং সংস্থা ও তাদের ভারতীয় অংশীদার টাটা অ্যাপাচে হেলিকপ্টারের কাঠামো তৈরি করে। কিন্তু এই চুক্তিটি পাকা হলে, মার্কিন প্রস্তুতকারকদের কাছ থেকে সরাসরি সম্পূর্ণ হেলিকপ্টার কিনতে আর বাধা থাকবে না ভারতীয় সেনাবাহিনীর। তিনটি মার্কিন অস্ত্র, উড়ান ও ইঞ্জিনিয়ারিং সংক্রান্ত সংস্থা এই চুক্তি করতে আগ্রহী। সংস্থাগুলি হল, লকহিড মার্টিন, জেনারেল ইলেক্ট্রিক ও রেথিয়ন।

- Advertisement -

এই চুক্তি অনুসারে প্রস্তুতকারী সংস্থাকে হেলিকপ্টারগুলি নাইট ভিশন সেন্সর, জিপিএস গাইডেন্স, অ্যান্টি আর্মার হেলফায়ার, ও স্টিঙ্গার এয়ার টু এয়ার মিসাইল-এ সম্বৃদ্ধ করে দিতে হবে। মার্কিন ডিফেন্স সিকিওরিটি কো-অপারেশন এজেন্সির দাবি, ‘এতে ভারতীয় সেনাবাহিনী আরও আধুনিক হবে, এবং ভূমিতে কোনও অস্ত্র হামলা ঠেকানোর ক্ষমতা অনেকটাই বাড়বে।’

এই কপ্টারগুলি ভারত চিন সীমান্তে ব্যবহার করা হবে বলে জানা গিয়েছে৷

ডোকলামে ভারত-চিন উত্তেজনার মধ্যে কিছু দিন আগে লোকসভায় ক্যাগের একটি রিপোর্ট প্রকাশ হয়৷ তাতে বলা হয় এই মুহুর্তে ভারতীয় বাহিনীর কাছে ১০ দিন চালিয়ে যাওয়ার মতো অস্ত্র মজুত নেই৷ রিপোর্ট প্রকাশ হতেই শোরগোল পরে যায়৷ এই পরিস্থিতির মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার ‘তাৎক্ষণিক তীব্র যুদ্ধের’ জন্য ভারতীয় বিমান বাহিনীকে জরুরি ভিত্তিতে বিমান ও অন্যান্য অস্ত্র সরবরাহ করার অনুমতি দেয়৷

Advertisement
---