হেমতাবাদ হাসপাতালে চিকিৎসককে মারধরের অভিযোগে গ্রেফতার ৪

স্টাফ রিপোর্টার, রায়গঞ্জ: চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে হেমতাবাদ ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভাঙচুর ও চিকিৎসককে নিগ্রহের ঘটনায় মৃতার পরিবারের চার জনকে গ্রেফতার করল পুলিশ৷

আরও পড়ুন: বিশ্বের সেরা ১০ ম্যাজিক ট্রিকস শিখে নিন, দেখুন ভিডিও

সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর ও চিকিৎসককে প্রাণে মারার চেষ্টার অভিযোগে ধৃতদের গ্রেফতার করেছে উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদ থানার পুলিশ৷

- Advertisement -

রবিবার রাতে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় হেমতাবাদ ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র৷ সেখানকার ছোট কান্তর এলাকার বাসিন্দা পাবেদা খাতুনকে শ্বাসকষ্ট ও রক্তচাপ জনিত সমস্যা নিয়ে ওই হাসপাতালে আনা হয়৷ তখন ওই হাসাপাতালে চিকিৎসার দায়িত্বে ছিলেন ডঃ বিপুল ঘোষ৷

আরও পড়ুন: অসাধারণ! একেবারে অল্প দামে ‘মিনি-কার’ আনছে এই সংস্থা

তিনি পাবেদা খাতুনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে রেফার করেন৷ কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই রোগীর মৃত্যু হয়।

অভিযোগ, এরপরই চিকিৎসায় গাফিলতির কথা বলে হেমতাবাদ হাসপাতালে ভাঙচুর শুরু করেন মৃতার বাড়ির লোকেরা৷ মারা হয় হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক বিপুল ঘোষকেও৷ ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিল অভিযুক্তরা৷ পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে৷

আরও পড়ুন: সবচেয়ে দীর্ঘ ও ভয়াবহ দাবানলে ধ্বংস হচ্ছে ক্যালিফোর্নিয়ার বৃহৎ বনাদি

এই ঘটনার পরই শোরগোল পড়ে যায়৷ তাঁদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেন চিকিৎসকদের সংগঠন৷ পুলিশকে কড়া পদক্ষেপের নির্দেশ দেওয়া হয়৷ তারপরই হাসপাতালে ভাঙচুর ও চিকিৎসককে মারধরের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় মৃত পাবেদা খাতুনের পরিবারের চার জনকে৷ মঙ্গলবারই ধৃত চার জনকে আদলতে পেশ করে পুলিশ৷

আরও পড়ুন: প্রকাশ্যে এনগেজমেন্ট রিং খুলে ফেললেন প্রিয়াঙ্কা!

Advertisement ---
---
-----