চিকিৎসার গাফিলতিতে রোগীমৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতালে ভাঙচুর

স্টাফ রিপোর্টার, রায়গঞ্জ: চিকিৎসার গাফিলতির জেরে রোগীমৃত্যুর অভিযোগ৷ প্রতিবাদে হাসপাতাল ভাঙচুর, চিকিৎসককে ধরে মারধরের অভিযোগ মৃতের পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে৷

ঘটনাটি উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদ হাসপাতালের৷ প্রহৃত চিকিৎসক বর্তমানে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷

আরও পড়ুন: ‘অভিযুক্তকে ইসলাম ধর্ম নিতে হবে’, সরব ওয়াইসি

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার রাত ১০ টা নাগাদ হেমতাবাদ ব্লকের ছোট কান্তর এলাকার বাসিন্দা পাবেদা খাতুনকে শ্বাসকষ্ট ও রক্তচাপ জনিত সমস্যা নিয়ে হেমতাবাদ হাসপাতালে আনা হয়৷ তখন ওই হাসাপাতালে চিকিৎসার দায়িত্বে ছিলেন ডঃ বিপুল ঘোষ৷

তিনি পাবেদা খাতুনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে রেফার করেন৷ কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই রোগীর মৃত্যু হয়। অভিযোগ, এরপরই চিকিৎসায় গাফিলতির কথা বলে হেমতাবাদ হাসপাতালে ভাঙচুর শুরু করেন মৃতার বাড়ির লোকেরা৷ মারা হয় হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক বিপুল ঘোষকেও৷ ধুন্ধুমার বেঁধে যায় হেমতাবাদ হাসপাতালে৷ প্রহৃত চিকিৎসক ভরতি রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে৷

আরও পড়ুন: বিদেশে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের জেরে বিপাকে বাংলার পর্যটকরা

হেমতাবাদ হাসপাতালের তরফে খবর দেওয়া হলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে৷ হাসপাতালের অভিযোগের ভিত্তিতে সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর ও চিকিৎসককে মারধরের ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে হেমতাবাদ পুলিশ।

এই ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন হেমতাবাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অন্যান্য রোগী ও তাদের আত্মীয়রা৷

আরও পড়ুন: ১৫ অগাস্টের আগে রাজধানীতে বড়সড় হামলার ছক কষছিল জঙ্গিরা

Advertisement
---